মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দক্ষিণঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের পুরন লেবুখালীর পায়রা সেতুর মাধ্যমেচোরাই মোটর সাইকেল সহ চোর গ্রেফতার সৈয়দপুরেএম ইলিয়াছ আলীর সন্ধান কামনায় বিশ্বনাথে দোয়া মাহফিলবিশ্বনাথে এমএ খান সেতুর টুল আদায় সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে সভাতরুণ সমাজকর্মী লিমনের উচ্ছ শিক্ষায় যুক্তরাজ্য গমন উপলক্ষে বিদায়ী সংবর্ধনাবিশ্বনাথে নানান আয়োজনে শেখ রাসেল দিবস ২০২১ পালনবিশ্বনাথের ছরকুম আলী দয়াল হত্যা- পুনঃ তদন্তে পিবিআইশেখ রাসেলের জন্ম দিবস পালিত বকশীগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগেনারী উন্নয়ন ফোরাম সৈয়দপুরের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে শিক্ষার্থীদের মাঝে সাইকেল বিতরণডাক্তার ও সেবা নেই – রোগী আছে, হাসপাতাল আছে

সুনামগঞ্জের পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ১০টি বসত বাড়ি, ১৮ শত মন ধান পুড়ে ছাই

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
  • ১৩৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্টঃ সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের টাইলা গ্রামে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি বসত বাড়ি, ধানের ঘর গোয়াল ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার(১৭ জুন) রাত ১০ টায় টাইলা পূর্বহাটির মুক্তিযোদ্ধা মৃত মরম আলীর ছেলে বকুল মিয়ার ঘরে গ্যাস সিলিন্ডার লিকেজ থেকে এই আগুনের সূত্রপাত ঘটে। নিমিষেই পুরো হাটিতে আগুন ছড়িয়ে পড়লে আগুনের লেলিহান শিখা দেখে গ্রামের লোকজন ছুটে আসেন ঘটনাস্থলে। ফলে সবার মাঝে আতংঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ইতিমধ্যে বকুল মিয়ার বসত ঘর পাশের পছন্দর আলী তার প্রায় ৭০০ মন ধান পুড়ে গেছে ,সাজিদুর রহমানের ঘরসহ একশত মন, আলফাজ মিয়ার ঘরসহ প্রায় ৭ শত মন, ওয়াকিক মিয়ার ঘরসহ ৪ শতাধিক মন ধান, আব্দুর রহমান, আব্দুল মতিনের ৪ শত মন ধান পুড়ে যায়। এছাড়াও আব্দুল হাসিম, গুলজার মিয়া ও রাসেল মিয়ার ঘরসহ ১০টি ঘরবাড়ি ১৮ শত মন ধান, স্বর্ণালঙ্কারসহ সহ প্রায় দেড়কোটি টাকার মালামাল সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

খবর পেয়ে জেলার দিরাই উপজেলা ফায়ার সাভির্সের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গেলেও সুরমা নদী পারাপারের কারণে তাদের পৌছতে কিছুটা বিলম্ব হলেও গ্রামবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছেন ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিটের সদস্যরা।

এ ব্যাপারে টাইলা গ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ মো. বকুল মিয়া জানান,গ্যাস সিলিন্ডার লিকেজ হওয়ার কারণে তার ঘরে প্রথমে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কিছু সময়ের মধ্যেই পাশের ঘরের আরো কমপক্ষে দশটি পরিবারে আগুন ছড়িয়ে পড়ে নিমিষেই আগুলের লেলিহান শিখায় সবকিছু ধবংস হয়ে গেছে। তিনি সরকার ও প্রশাসনের নিকট দাবী জানান ক্ষতিগ্রস্থদের পূর্ণবাসনের ব্যবস্থা করার জন্য।

এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত দিরাই ফায়ার সার্ভিসের লিডার মো. সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,নদী পারাপারের কারনে পৌছতে কিছুটা বিলম্ব হলেও এসে গ্রামবাসীর সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়েছেন। তবে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তরা দেড়কো কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দাবি করলেও ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষণিকভাবে নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি বলেও জানান ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000