সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান বিভাগের সিনিয়র সচিবের দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনজায়েদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সৎ ও মেধাবী হওয়ার সাথে সাথে উত্তম চরিত্র গঠন করতে হবে তালামিয কর্মীদের—প্রতিবছরই নেওয়া লাগতে পারে করোনার টিকাএকাধিক মামলার আসামী মাদক ব্যবসায়ী রাশেল মিয়া ওরফে সুমন গ্রেফতারমুজতবা হাসান চৌধুরী নুমান বলেছেন একটি আদর্শ সমাজ গঠনে এক দল পরিশুদ্ধ মানুষ প্রয়োজনবিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে বিশ্বনাথের মাকুন্দা নদীতে নৌ-যাত্রা৩ সপ্তাহ যাওয়ার ৩ তিন কোটি টাকার রাস্তায় ফাটলউত্তর কুশিয়ারা আন্তর্জাতিক অনলাইন গ্রুপের বাংলাদেশ সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে সাইদুল ইসলাম মিনুরকে সংবর্ধনা প্রধানবিদ্যালয়ের ভবন উদ্ভোধন উপলক্ষ্যে বিশ্বনাথে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলচেতনানাশক খাইয়ে পটুয়াখালীতে তাবলীগ জামাত সদস্যদের মালামাল লুট

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যানকে নিয়ে ফেসবুকে মানহানিকর বক্তব্যের ঘটনার থানায় জিডি

ফারুক আহমদ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১
  • ৬২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সিলেটের বিশ্বনাথের উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এসএম নুনু মিয়াকে নিয়ে ‘কুরুচি ও মানহানিকর অশালীন’ বক্তব্য দেয়ায় যুক্তরাজ্য প্রবাসী আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরী দায়ের (জিডি) করা হয়েছে। ডায়েরী নং ৯০৮ (তাং ২০.০৮.২১ইং)।

শুক্রবার ২০ আগস্ট রাতে উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়া বাদী হয়ে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার লাউতলা গ্রামের মৃত আছান উল্লাহর পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে ওই সাধারণ ডায়েরী (জিডি) দায়ের করেন।

নিজের করা জিডিতে উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়া উল্লেখ করেছেন, গত বৃহস্পতিবার একটি ফেসবুক পেইজে প্রবাসী আতাউর রহমান একটি সালীশকে কেন্দ্র করে তাকে (নুনু মিয়া) জড়িয়ে কুরুচি ও মানহানিকর অশালীন এবং আক্রমনাক্তক বক্তব্য উপস্থাপন করেন। মনগড়া বানোয়াট এ বক্তব্যের কোন সত্যতা নাই বলে দাবি করেন নুনু মিয়া। বিগত এক বছর আগে প্রবাসী আতাউর রহমান বিশ্বনাথে তার শশুর বাড়ির ব্যাপারে একটি শালিস বৈঠক স্থানীয় খাজাঞ্চী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে শালিসগণের কথানুযায়ী এক লক্ষ টাকা তার (নুনু) মাধ্যমে প্রদান করেন প্রবাসী এবং সবার উপস্থিতিতেই তিনি টাকা সমজিয়া নেন। নুনু মিয়া আরও উল্লেখ করেন, তিনি ওই শালিস বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না, এমনকি ওই শালিসের শালিসিয়ান হিসেবেও তাঁর নাম ছিল না। এক বছর পর প্রবাসী একটি স্বার্থন্বেষী মহলের প্ররোচনায় সম্পূর্ণ অসত্য ও আশালীন বক্তব্য, সম্পূর্ণ মানহানিকর ও জিডিটাল নিরাপত্তা আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
প্রবাসীর এ বক্তব্য উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে এবং দলের প্রতিও কটাক্ষ করেছেন ওই প্রবাসী।

উপজেলা চেয়ারম্যান এম এম নুনু মিয়া  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে প্রবাসীর এই বক্তব্য প্রত্যাহারপূর্বক সরিয়ে ফেলার দাবি জানান ও তাঁর বিরুদ্ধে আশালীন ও মানহানিকর বক্তব্যের বিচারও দাবি করেন।

এব্যাপারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম নুনু মিয়া জিডি দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে এব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000