শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৬:২১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নীলফামারীর সৈয়দপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভাবিশ্বনাথের দশঘরে সড়ক পাকাকরণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন এসএম নুনু মিয়ানীলফামারীর সৈয়দপুরে ১ সন্তানের জনকের লাশ উদ্ধারপটুয়াখালীতে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনস্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠকারী এম এ হান্নান সম্পর্কে ভুল তথ্য দিয়ে সমালোচনায় হানিফসৎপুর মাদরাসার ৭৫ বছরপূর্তি অনুষ্ঠান আগামী বছরের ১ লা মার্চনীলফামারীর সৈয়দপুরে অপহরণ চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার, অপহৃত কিশোর উদ্ধাররাজধানীতে ফের প্যাকেজিং কারখানায় আগুননীলফামারীর সৈয়দপুরে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারসৈয়দপুরের প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষিকা এক মাসের ছুটি নিয়ে এক বছর ধরে আমেরিকায়

সিলেটের বিশ্বনাথে ধর্ষক ও মাদক সম্রাট তবারক আলী গ্রেফতার

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১
  • ২৭৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ফারুক আহমদঃ সিলেটের বিশ্বনাথে ধর্ষণ করে অজ্ঞাতনামা নারীকে হত্যার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে বহুল আলোচিত-সমালোচিত ১২ টি মামলার আসামি ইয়াবা সম্রাট তবারক আলী (৪২) কে।

আজ রোববার ২৫ জুলাই সন্ধ্যায় উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের পাঠাকইন গ্রামে নিজ বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত মাদক সম্রাট তবারক আলী (৪২) পাঠাকইন গ্রামের মৃত আলকাছ আলীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় প্রায় ১১ টি মামলা রয়েছে।

জানাগেছে ২০১৭ সালের ২২ এপ্রিল উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রামচন্দ্র পুর গ্রামের আয়ুব আলীর বাড়ীর সামন থেকে এক অজ্ঞাতনামা নারীর লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।
এ ঘটনায় ঐ দিন রাতে তখনকার থানা পুলিশের এসআই রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে বিশ্বনাথ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলা নং ১১/ ২৪-০৪-২০১৭ ও জিআর মামলা নং ৬৫/১৭।
মামলাটি দীর্ঘ তদন্ত শেষে কোন রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি থানা (পিবিআই) পুলিশ।
অবশেষে ২০১৮ সালের ১০ সেপ্টেম্বর কিশোরী রুমি আক্তারের লাশ উদ্ধারের পর রামচন্দ্র পুর গ্রামের মৃত ওয়াহাব আলীর ছেলে ঘাতক শফিক মিয়াকে গ্রেফতার করা হলে সে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানায়, রুমিকে খুন করার ১৭ মাস পূর্বে শফিক ও তবারক আলী মিলে অজ্ঞাতনামা নারীকে ও একাধিকবার ধর্ষণ করার পর হত্যা করে লাশ গুমের চেষ্টা করে।

সুত্রে জানায়, পলিথিন ব্যাগ বিক্রির পর তবারক আলী গাড়ীর হেলপার থেকে চুরির সাথে জড়িয়ে পড়ে। চুরির মামলায় গ্রেফতারের পর থানা হাজত থেকে হাতকড়াসহ পালিয়ে যাওয়ার মতো অপরাধ ও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। পরে অবশ্য সে গ্রেফতার ও হয়।

অবশেষে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ও গাঁজা ব্যবসায় জড়িত হয়ে জিরো থেকে কোটি টাকার মালিক হয়েছে তবারক আলী। শুধু বিশ্বনাথেই নয় সে দেশের বিভিন্ন স্হানে ইয়াবা সম্রাট বা ইয়াবা সুমন নামে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে মাদক, চুরি ও ধর্ষণ করে খুনসহ প্রায় ১২ টি মামলা মামলা ও রয়েছে বিভিন্ন থানায়।
২০২০ সালের ৬ মার্চ হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার উবাহাটা এলাকায় ৬১ হাজার পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার করা হয় তার সহযোগি নাহিদা বেগম ও শাহিনা খাতুনকে। তাদের স্বীকারোক্তিতে ওই দিন রাতে ই নিজ বাসা থেকে তবারক আলীর স্ত্রী সাবিনা আক্তারকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। এবং তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ১৩ মার্চ ভোর রাতে নিজ বাড়ী থেকে মাদক সম্রাট তবারক আলীকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে জেলা পুলিশ।

গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, সে একজন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী, তার বিরুদ্ধে বিশ্বনাথ থানাসহ বিভিন্ন থানায় চুরি, মাদক, ধর্ষণ ও হত্যার একাধিক মামলা রয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000