বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১২:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সেবা প্রদানের জন্য ‘ ফেঞ্চুগঞ্জ উত্তর কুশিয়ারা আন্তর্জাতিক অনলাইন গ্রুপের’ বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালুকরোনা রোগীদের জন্য বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু বিশ্বনাথেপাওয়ার ব্যান্ড’ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলো বিশ্বনাথেগাইবান্ধা জুড়ে কঠোর লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে মানুষের চলাচল বেড়েছে৩৪টি আশ্রয় শিবিরের হাজার হাজার রোহিঙ্গা পাহাড় ধসের ঝুঁকিতেরেকর্ড সংখ্যক ১৭ জনের মৃত্যু সিলেটে করোনায় : আক্রান্ত ৭৩৬ জনলকডাউন অমান্য করায় পাঁচ দিনে ১১ মামলায় ১৭ হাজার টাকা জরিমানা সুন্দরগঞ্জেবিশ্বনাথের ইউএনও সুমন চন্দ্র বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দগ্ধ ব্যক্তির চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করলেনমৌলভীবাজারের বড়লেখায় জরুরি বৈঠক করলো করোনা প্রতিরোধ কমিটিসিলেটের বিশ্বনাথে করোনা ভাইরাসে এক বৃদ্ধের মৃত্যু

সিলেটের প্রতিটি ঈদ জামাতে করোনা মুক্তির দোয়া

বিশেষ প্রতিনিধি:
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১
  • ৯৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

খোলা ঈদগাহ, বড়দের হাত ধরে শিশুদের আগমন আর নামাজ শেষে কোলাকুলিতে ঈদগাহ ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ। এটা সিলেটবাসীর কাছে চিরচেনা দৃশ্য। কিন্তু গেলো দুই বছর থেকে এটা কল্পনাতীত।

কারণ, অদৃশ্য এক ভাইরাসে পুরো বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও থমকে গেছে স্বাভাবিক জীবনযাপন।

এক কথায় বলতে গেলে এবারও ঈদ উৎসব আনন্দ-খুশির ডালায় নয়, এসেছে শঙ্কা-অনিশ্চয়তার বার্তা নিয়ে। এভাবে বিগত বছরের মতো এবারও ভিন্ন এক পরিস্থিতিতে পালিত হচ্ছে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ উল ফিতর। আর করোনা পরিস্থিতির মাঝে এ উৎসব পালনে সরকারি বিধিনিষেধ তো আছেই।

এসবের মাঝে মসজিদে মসজিদে বৈশ্বিক মহামারী করোনা মুক্তির প্রার্থনা ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি এবং সমৃদ্ধি কামনা করে সিলেটে ঈদুল ফিতরের জামাত শেষ হয়েছে। একেক মসজিদে একেক সময়ে শুরু হলেও সকাল ৭টায় কালেক্টরেট মসজিদে নগরীর প্রথম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ওই মসজিদে ঘন্টার ব্যবধানে অনুষ্ঠিত হয় চারটি ঈদ জামাত।

সকাল সাড়ে সাতটায় কুদরত উল্লাহ জামে মসজিদে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে ঘন্টার ব্যবধানে তিনটি জামাতে অংশ নেন মুসল্লিরা। এদিকে করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারি বিধিনিষেধের মাঝে সিলেটের শাহী ঈদগাহসহ জেলার ৫২০ ঈদগাহে এবার হয়নি ঈদের জামাত। এমন বাস্তবতায় সকাল সাড়ে ৮ টায় সিলেটের হজরত শাহজালাল (রহ.) মাজার মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। একই সময়ে হজরত শাহপরান (রহ.) মাজার মসজিদে অনুষ্ঠিত হয় ঈদের জামাত। এছাড়া গাজী বুরহান উদ্দিন (রহ.) মাজার মসজিদে সকাল ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। তবে বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে এবারের ঈদ আনন্দের সবকিছুতেই ছিল এক ধরণের শূন্যতা।

ঈদের জামাত শেষে কোলাকুলির মধ্য দিয়ে আনন্দ ভাগাভাগির রীতি থাকলেও এবার করোনা পরিস্থিতিতে এর উপর ছিল নিষেধাজ্ঞা। এছাড়াও নামাজে প্রবেশের সময় সকল মুসলমানদের জায়নামাজ পরে প্রবেশ করতে দেখা গেছে। এমনকি সকল মুসল্লিদের হ্যান্ড স্যানিটাইজ করিয়ে প্রবেশ করানো হয়। তবে মুসল্লিরা স্বাস্থ্যবিধি আংশিকভাবে মানলেও নিরাপদ দূরত্ব বজায় থাকেনি কোথাও। তবে সকল মসজিদের মোনাজাতে ছিল বৈশ্বিক মহামারী করোনা বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠার পাশাপাশি মুসলিম উম্মাহর জন্য বিশেষ প্রার্থনা।

(আলোকিত সিলেট/১৩মে/এমবিএইচ)

 

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000