মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ফ্রান্সে শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপনবাকোডিসির পক্ষ থেকে সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে বাড়ি নির্মান ও গবাদিপশু বিতরণদূর্গাপূজা হিন্দু ধর্মাবলম্বী এক হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলেন সৈয়দপুর পৌর মেয়েরপরারাষ্ট্র মন্ত্রীর সাথে যুক্তরাষ্ট্রে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়বকশীগঞ্জে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনআন্তর্জাতিক অহিংস দিবস উপলক্ষ্যে বিশ্বনাথে পিএফজির মানববন্ধনওসমানীনগরে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বিতরণওসমানীনগরের রাসেল সিলেট ল কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনোনীতইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান -২০২২ জনসচেতনতামৃলক সভাদুর্গাপুজা উপলক্ষে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের সাইবার সেল ও মনিটরিং সেল গঠন

১০লাখ পরিবারে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা প্রদান শুরু

ডেস্ক রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ৪১৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

আবারও করোনা পরিস্থিতির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৬ লাখ পরিবারের জন্য জিটুপি পদ্ধতিতে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সরাসরি উপকারভোগীর অ্যাকাউন্টে অর্থ সহায়তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (২ মে) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের এই অর্থ সহায়তা কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। ২০২০ সালে করোনায় কর্মহীন ১০ লাখ প্রকৃত উপকারভোগীদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা সফলতার সঙ্গে পৌঁছে দেয়ায় এবারও বিকাশের মাধ্যমে তাদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদান পৌঁছে যাচ্ছে। আগামী তিনদিনের মধ্যেই সব উপকারভোগীর বিকাশ অ্যাকাউন্টে এই অর্থ সহায়তা পৌঁছে যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এই আর্থিক সহায়তায় উপকারভোগীরা হচ্ছেন কোভিড-১৯ এর প্রভাবে কর্মহীন হওয়া প্রান্তিক মানুষেরা। প্রধানমন্ত্রীর এই মানবিক উদ্যোগে প্রতিটি পরিবার ২ হাজার ৫০০ টাকা করে আর্থিক সহায়তা পাচ্ছেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ অবকাঠামোগত সুবিধা ব্যবহার করে এবারও জাতীয় পরিচয়পত্রের ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির কাছে স্বচ্ছতা, দ্রুততা ও নিরাপত্তার সঙ্গে মোবাইল আর্থিক সেবাই সহায়তার অর্থ বিতরণ করা হচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জেলা থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে সংযুক্ত উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। সরকারি সাহায্যের এই টাকা ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে উপকারভোগীর কোনো খরচ লাগছে না। মোট ক্যাশ আউট খরচের ১৫ টাকা দেবে সরকার, বাকি ৩১.২৫ টাকা বিকাশ বহন করবে এই মহতী উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে। সাহায্য পাওয়া পরিবারের সদস্যরা যেন নির্বিঘ্নে এই টাকা ক্যাশ আউট করতে পারেন সে ব্যাপারে সমস্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

সরকারের দূরদর্শী সিদ্ধান্তে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কল্যাণে জরুরি এই সময়ে দুস্থ পরিবারগুলোর মাঝে আর্থিক সহায়তা যথাযথভাবে বিতরণ করা সম্ভব হচ্ছে।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপকারভোগীদের সামাজিক নিরাপত্তা ভাতা, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কয়েক লাখ উপকারভোগীর ভাতা, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভাতা, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ভাতা, বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মন্ত্রণালয়ের ভাতা সফলতা, স্বচ্ছতা ও দ্রুততার সঙ্গে উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণ করে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ লক্ষ্যমাত্রা পূরণের সহযোগী হিসেবে কাজ করে আসছে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ।

আলোকিত সিলেট/৩মে/এম.বিএইচ

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000