বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিশ্বনাথ উপজেলা আল ইসলাহ’র কমিটি: সভাপতি আখতার আলী সম্পাদক হাবিবজামালপুরের বকশীগঞ্জে দলিল লেখক সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিতদেবীদ্বার পৌর আওয়ামী লীগ নেতা মরহুম হাজী শহীদুল্লাহ খাজার জানাজা ও দাফন সম্পন্নকুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলা মহিলা শ্রমিক লীগের কমিটি ৩বছরের জন্য অনুমোদনদুমকিতে এইচ.এস.সি ও বি.এম পরীক্ষার প্রস্তুতিমূলক সভাফের গাজিপুরের এক গার্মেন্টসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাকিশোরগঞ্জে ভোটকেন্দ্রে বিজিবি সদস্য নিহতের ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দলের পরিদর্শনসৈয়দপুরে স্ত্রী হত্যাচেষ্টা মামলায় আ’লীগ নেতা জেল হাজতেবালাগঞ্জের কাশিপুর খালের ভাঙ্গন পরিদর্শন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যানসিটি কর্পোরেশন সহ সিলেটের ৩২টি অফিসের বিরুদ্ধে বেশি অভিযোগ দুদকের গণশুনানিতে

রোগির মৃত্যু বড়লেখা হলি লাইফ হসপিটালের চেয়ারম্যানসহ ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা প্ররোচিত করে ভর্তিকৃত

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩০ জুন, ২০২১
  • ১০৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃইবাদুর রহমান জাকির বড়লেখা প্রতিনিধিঃ মৌলভী বাজারের বড়লেখা উপজেলা সদরের হলি লাইফ স্পেশালাইজ্ড হসইপটালের চেয়ারম্যান মৌসুমী কিবরিয়া, সিনিয়র ব্যবস্থাপক বিপুল কান্তি দাস ও হসপিটালের চেম্বার চিকিৎসক নুর নবী রাজুর বিরুদ্ধে প্ররোচিত করে ভর্তি করা এক নারী রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা (সিআর-১৫৩/২১) হয়েছে। ২৮ জুন সোমবার বিকেলে মামলাটি করেছেন নিহত নারীর স্বামী মোহন দে। তিনি পৌরশহরের তেলিগুল এলাকার মহানন্দ দে’র ছেলে।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, ২০ জুন মোহন দে’র স্ত্রী সুমা রানী দে পারিবারিক কলহে কীটনাশক পান করেন। আহত অবস্থায় স্বজনরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থা আশংকাজনক কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। সিলেট যাওয়ার প্রাক্কালে আসামীরা প্ররোচিত করে ভিকটিমকে সুস্থ্য করার আশ্বাসে তাদের প্রাইভেট হসপিটালে ভর্তি করায়। ২০ ঘন্টা আটকানোর পর আসামীরা দ্রুত রোগীকে সিলেটে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন। চিকিৎসা সংক্রান্ত কাগজপত্র ও ছাড়পত্র চাইলে আসামীরা গালমন্দ ও হুমকি-ধমকি দেয়। এ্যাম্বুলেন্সে সিলেট পৌঁছার পরই রোগীর মৃত্যু ঘটে।

মামলার বাদী মোহন দে অভিযোগ করেন, সিরিয়াস অবস্থা জেনেও আসামীরা আর্থিক ফায়দা হাসিলের অসৎ উদ্দেশে আমার স্ত্রীকে তাদের হসপিটালে ভর্তি করে। ২০ ঘন্টা আটকে রাখায় এবং চিকিৎসায় অবহেলার কারণে তার স্ত্রীর মৃত্যু ঘটেছে। তিনি ন্যায় বিচার পেতে আদালতের শরনাপন্ন হয়েছেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000