শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:২১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস্ প্রতিযোগিতার উদ্ভোধনসৈয়দপুরে সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন সরকারসহ ৩ বিএনপি নেতার স্মরনসভা অনুষ্ঠিতমিরেরচরেই হবে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ -বিশ্বনাথে এমপি মোকাব্বিরনীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ভূয়া এনএসআই সদস্যসহ আটক-২ওসমানীনগরের নবগ্রাম স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ কমিটি গঠনবাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা কমিটি গঠনসৈয়দপুরে বিসিক শিল্পনগরীতে প্লাইউড কারখানায় আগুনে কোটি টাকার ক্ষতিজামায়াত আমীর ডাঃ শফিকুর রহমানকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে লন্ডনে বিক্ষোভ সমাবেশছাতকের খুরমা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবসে আলোচনা সভানীলফামারীর সৈয়দপুরে মহান বিজয় দিবস পালিত

নীলফামারীর সৈয়দপুরে যৌতুকের বলি গৃহবধূ মুক্তা, স্বামী ও শাশুড়ি আটক

মোঃজাকির হোসেন,নীলফামারী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৩০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নীলফামারী সৈয়দপুরে যৌতুকের জন্য এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার(১৭ নভেম্বর) সকালে সংঘটিত এ ঘটনায় পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে এবং স্বামী তহিদুল ইসলাম (২৮) ও শাশুড়ি তহুরা বেগমকে (৪৮) আটক করেছে।



তারা উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের বাড়াইশালপাড়া আদর্শ গুচ্ছ গ্রামের আফজালের ছেলে ও স্ত্রী।

নিহত গৃহবধুর নাম মুক্তা বেগম (২৫)। সে একই উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের কিসামত উত্তরপাড়ার মোস্তফার মেয়ে।

নিহত মুক্তা বেগমের মা মোরশেদা জানায়, ৯ বছর আগে মেয়ের বিয়ে দিয়েছি। বিয়ের পর থেকেই জামাই ও তার বাবা মা যৌতুক দাবি করে আসছে। ইতোমধ্যে অনেক টাকা দেয়া হয়েছে। একটি ছেলেও হয়েছে। তবুও তারা আরও যৌতুক দাবি করছে।

অতিরিক্ত দাবীকৃত যৌতুক না দেয়ায় এ নিয়ে প্রায়ই তারা আমার মেয়েকে পারিবারিকভাবে নানা অত্যাচার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকালে মুক্তা বেগমকে বেদম মারপিট করে এক পর্যায়ে বসার পিড়া দিয়ে বুকে ও পিঠে আঘাত করলে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে।

এতে অবস্থা বেগতিক দেখে পরিবারের লোকজন প্রথমে গলায় ওড়না পেচিয়ে ঘরের চালের কাঠের বাতার সাথে ঝুলিয়ে দিয়ে চিৎকার করে প্রচার করে যে মুক্তা আত্মহত্যা করেছে। এতে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে তাদের সহযোগীতায় হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। তখন পরিবারের লোকজন মুক্তাকে পুনরায় বাড়িতে নিয়ে আসে।

এরপর সকাল ৯টার দিকে খবর পেয়ে মুক্তার মা বাবা ছুটে যায়। এসময় তারা মৃত মেয়ের শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশকে খবর দেয়।

থানায় উপস্থিত গৃহবধূর ছেলে মোমিন (৫) নানির কোলে বসে পুলিশকে জানায়, আমার মা কে বাবা পিড়া দিয়ে মারছে আর গলায় ওড়না দিয়ে বাধছে। আমি এগিয়ে গেলে আমাকেও মারছে। এসময় সে তার পায়ে আঘাতের চিহ্ন দেখায়।

১১ টার দিকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। সেই সাথে হত্যার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে স্বামী ও শ্বাশুড়িকে ধরে নিয়ে আসে। শ্বশুর দেবর ও খালা শ্বাশুড়ী পলাতক রয়েছে।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসনাত খান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে নিহতের শরীরের আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। তাছাড়া নিহতের একমাত্র সন্তান বলেছে তার মাকে পিড়া দিয়ে পিটিয়ে মারা হয়েছে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000