শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বকশীগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের নবাগত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতবিনিময়সৈয়দপুরে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেল ইজিবাইক চালকের ছেলে নয়ননীলফামারীর সৈয়দপুর ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের শরীর তিন খন্ডদুমকিতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের আনন্দ শোভাযাত্রানীলফামারীর সৈয়দপুরে ৫ টি দোকান আগুনে পুড়ে ছাই, ২০ লাখ টাকার ক্ষতিওসমানীনগরে বাড়ির উঠান দিয়ে রাস্তা নিতে প্রতিবন্ধি পরিবারে হামলানীলফামারীর সৈয়দপুরে থানা ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠিতছাত্রদল নেতা নয়ন হত্যার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিএনপি বিক্ষোভ সমাবেশওসমানীনগরে কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণবালাগঞ্জে ফ্রান্স প্রবাসী কমিউনিটি নেতা সুমন এর পিতৃবিয়োগ

মজুরি বৈষম্য নিরসনের দাবীতে সৈয়দপুরে এলএসডি গোডাউন লেবারদের কর্মবিরতি

মোঃ জাকির হোসেন, নীলফামারি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩০ জুলাই, ২০২২
  • ৫৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সরকারি খাদ্য গুদামে (এসএসডি) মালামাল লোড আনলোড কাজে নিয়োজিত মজুররা মজুরি প্রাপ্তির ক্ষেত্রে চরম বৈষম্যের শিকার। এমন অভিযোগে সরকারি পন্য খালাসের কাজে কর্মবিরতি শুরু করেছে নীলফামারীর সৈয়দপুর খাদ্য গুদামের লেবাররা। গত বৃহস্পতিবার থেকে এই আন্দোলন চলে আসলেও কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার ভ্রুক্ষেপ না করায় শনিবার (৩০ জুলাই) সকালে তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।



তাদের এই কর্মসূচির ফলে সরকারি চাল লোড আনলোডে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা কোন ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো সব ধরনের কার্যক্রম স্থগিত করে দেয়ায় পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে পড়েছে। এতে কয়েকটি ট্রাক মালসহ ৩ দিন ধরে এসএসডি চত্বরে আটকে থাকায় চালকসহ ঠিকাদাররাও দুর্ভোগে পড়েছে। আর লেবাররা মিলারদের ব্যক্তিগত ও বেসরকারি মাল আনলোড করতে না পেরে উপার্জনহীন হয়ে বিপাকে পড়েছে।

সরেজমিনে শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় সৈয়দপুর খাদ্য গুদামে গেলে দেখা যায়, মূল ফটকে আড়াআড়িভাবে রাখা হয়েছে ৪ টি চালভর্তি ট্রাক। ফলে আর কোন পরিবহন খাদ্য গুদামে ঢুকতে বা বের হতে পারছেনা। লেবাররা জানায় ট্রাক চালকরা ঠিকাদার নুরুল ইসলামের নির্দেশে এই কাজ করেছে।

চালকরা বলেন, আমরা বাধ্য হয়ে এমন করেছি। গত বৃহস্পতিবার নীলফামারী সরকারি খাদ্য গুদাম থেকে চাল এনেছি। আজ শনিবারও মাল খালাস হয়নি। লেবাররা মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলন করছে। তারা সরকারি মাল লোড আনলোড না করে মিলারদের কাজ করছে। খাদ্য গুদাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা, জেলা খাদ্য কর্মকর্তা কেউই কিছু করছেন না। ৩ দিন থেকে আমরা এখানে পড়ে আছি। ঠিকাদার বা কর্তৃপক্ষ কেউ দায় নিচ্ছেনা। আমাদের ক্ষতিপূরণ কে দিবে?

খাদ্য গুদাম লেবাররা জানান, আমরা দীর্ঘদিন থেকে মজুরি বৈষম্যের শিকার। সরকারি পন্য লোড আনলোডে বাজার মূল্য অনুযায়ী আমাদের মজুরি অত্যন্ত অমানবিক। বস্তাপ্রতি মাত্র ১ টাকা করে মজুরি পাই। যা একেবারে নগন্য এবং বৈষম্যপূর্ণ। একটা ট্রাক লোড আনলোড করে ৭শ’ থেকে ১ হাজার ৪শ’ টাকা পেলে ৪৪ জন লেবার ভাগ করে নেই। এতে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করেও মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে। বার বার এনিয়ে আবেদন জানালেও গরীবের প্রতি কেউ তাকাচ্ছে না।

লেবার সর্দার (সভাপতি) জিকরুল হক বলেন, মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আমরা ইতোপূর্বেও অনেক আন্দোলন করেছি। প্রতিবারই খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা ও উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা অনুরোধ করে করে আমাদের কাজে নিয়োজিত করেছে।

উর্ধতন কর্তৃপক্ষও কথা দিলেও কাজ করেন না। সর্বশেষ বর্তমান জেলা খাদ্য কর্মকর্তাও হতাশ করেছেন। এজন্য লেবাররা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। তাই সরকারি পন্য লোড আনলোড বন্ধ করে দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার থেকে এই কর্মবিরতি চলছে। তবুও কর্তৃপক্ষ নির্বিকার। সমাধান দূরে থাক উল্টো সবধরনের মালামাল লোড আনলোড স্থগিত করেছে। এতে মিলারদের কাজও করতে বাধা দেয়ায় আমরা কর্মহীন হয়ে পড়েছি। এরফলে জটিলতা বেড়েছে। প্রশাসনও সমাধান না করে কর্মকর্তা ও ঠিকাদারদের কথামত গরীব মারা পদক্ষেপকেই প্রাধান্য দিচ্ছে। আমরা এর প্রতিকার চাই।

উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান বলেন, লেবাররা আমাদের কথাও মানেননা। জরুরি সময়ে অহেতুক দাবি তুলে কাজে ব্যাঘাত ঘটায়। আমরা যেন তাদের কাছে জিম্মি। মজুরি বৃদ্ধির কোন কর্তৃত্ব আমাদের নেই। এটা মন্ত্রণালয়ের বিষয়। সামনে টেন্ডার হবে। এতে স্বাভাবিকভাবেই মজুরি বাড়বে। সারাদেশে যে রেটে কাজ করছে লেবাররা সেই রেটই এখানে। তারপরও তারা কথায় কথায় এই ব্যাপারে অরাজকতা সৃষ্টি করে।

তিনি বলেন, জেলা খাদ্য কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নির্দেশ দিয়েছেন সরকারি পন্য লোড আনলোড না করলে অন্য মালামাল লোড আনলোডও বন্ধ রাখতে। সে অনুযায়ী সব কাজ বন্ধ করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোখছেদুল মোমিন এর সাথে লেবার নেতৃবৃন্দ আলোচনায় বসছে। আশা করি সমাধান হবে। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আলোচনা ও কর্মবিরতি চলছিল।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000