শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বকশীগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের নবাগত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতবিনিময়সৈয়দপুরে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেল ইজিবাইক চালকের ছেলে নয়ননীলফামারীর সৈয়দপুর ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের শরীর তিন খন্ডদুমকিতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের আনন্দ শোভাযাত্রানীলফামারীর সৈয়দপুরে ৫ টি দোকান আগুনে পুড়ে ছাই, ২০ লাখ টাকার ক্ষতিওসমানীনগরে বাড়ির উঠান দিয়ে রাস্তা নিতে প্রতিবন্ধি পরিবারে হামলানীলফামারীর সৈয়দপুরে থানা ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠিতছাত্রদল নেতা নয়ন হত্যার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিএনপি বিক্ষোভ সমাবেশওসমানীনগরে কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণবালাগঞ্জে ফ্রান্স প্রবাসী কমিউনিটি নেতা সুমন এর পিতৃবিয়োগ

ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা হচ্ছে বকশীগঞ্জ উপজেলা

বকশিগঞ্জ(জামালপুর)প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০২২
  • ৭৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত উপজেলা ঘোষণা করা হবে। আগামি ২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে জামালপুর জেলার একমাত্র উপজেলা হিসেবে বকশীগঞ্জকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করবেন। এ উপলক্ষে সকল ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন উপজেলা প্রশাসন।



জানা গেছে, “আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” স্লোগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন অর্থাৎ যাদের জমিও নেই ঘরও নেই সেসব পরিবারকে পুনর্বাসনের জন্য সরকারি খাস জমিতে গৃহ নির্মাণ করে দেওয়া হয়।

বকশীগঞ্জ উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ২১২ টি ভূমিহীন পরিবারকে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়। প্রথম পর্যায়ে ১৪২ টি পরিবার, দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০ টি পরিবার ও তৃতীয় পর্যায়ে ২০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার এই প্রকল্পের মাধ্যমে মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছেন।

বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা প্রশাসনের দিকনির্দেশনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে ১ম , ২য় ও ৩য় পর্যায়ের ঘর গুলো নির্মাণ সম্পন্ন করেন তার নেতৃত্বেই ভূমিহীনদের যাচাই-বাছাই শেষে বিভিন্ন ইউনিয়নের ছিন্নমূল মানুষের জন্য ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়।
বকশীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক তত্ত¡াবধানে নির্মিত ঘর গুলো গৃহহীন পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্পটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নেই ২১২ টি ঘর নির্মাণ করা হয়। বিধবা, প্রতিবন্ধী, তৃতীয় লিঙ্গেও মানুষ,চরম দরিদ্র, ভিক্ষুক সহ বিভিন্ন পেশার মানুষ এসব ঘরে জায়গা পেয়েছেন। যাদের নুন আন্তে পান্তা ফুরায় তারা বিল্ডিং ঘরে থাকার সুযোগ পেয়ে খুশিতে আত্মহারা পিছিয়ে থাকা এসব মানুষ।

অনেক পরিবার ঘর পেয়ে এখন তাদের স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছেন। এরই মধ্যে বকশীগঞ্জ উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণার লক্ষ্যে দফায় দফায় মিটিং করেন উপজেলা প্রশাসন।

ভূমিহীন মুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করতে ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় করেছেন টাস্কফোর্স কমিটি।

এবিষয়ে সকল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণার প্রত্যয়ণ প্রদান করেছেন। তবে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিভিন্ন সুধীজনের দাবি “ক” শ্রেণির ঘর নির্মাণের পর ভূমিহীন পাওয়া না গেলেও “খ” শ্রেণির অর্থাৎ যাদের জমি আছে ঘর নাই সেইসব পরিবারের জন্য নতুন করে উদ্যোগ গ্রহণ করা হোক। ভূমিহীন না থাকলেও জমি আছে কিন্তু ঘর নেই এসব পরিবারের সংখ্যা এখনো অনেক রয়েছে। তাই তারা প্রধানমন্ত্রীকে বিষয়টি বিবেচনা করার করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা জানান, সরকারের দেওয়া নির্দেশনা মোতাবেক স্থানীয় সংসদ সদস্য , জেলা প্রশাসক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বয় করে “ক” শ্রেণি ঘর গুলো নির্মাণ হয় এবং গৃহহীনদের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে এর সুফল পাচ্ছে ২১২ টি পরিবার। তবে বকশীগঞ্জ উপজেলায় আর কোন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার না থাকায় ২১ জুলাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলাকে ভূমিহীন মুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করবেন। এছাড়াও ইউএনও লিজা এই কর্মযজ্ঞে সহযোগিতার করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000