সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নীলফামারীর সৈয়দপুর ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের শরীর তিন খন্ডদুমকিতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের আনন্দ শোভাযাত্রানীলফামারীর সৈয়দপুরে ৫ টি দোকান আগুনে পুড়ে ছাই, ২০ লাখ টাকার ক্ষতিওসমানীনগরে বাড়ির উঠান দিয়ে রাস্তা নিতে প্রতিবন্ধি পরিবারে হামলানীলফামারীর সৈয়দপুরে থানা ওপেন হাউস ডে অনুষ্ঠিতছাত্রদল নেতা নয়ন হত্যার প্রতিবাদে সৈয়দপুরে বিএনপি বিক্ষোভ সমাবেশওসমানীনগরে কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণবালাগঞ্জে ফ্রান্স প্রবাসী কমিউনিটি নেতা সুমন এর পিতৃবিয়োগবকশীগঞ্জের বাঘাডুবি দাখিল মাদ্রাসা সুপারসহ ৬ জন শিক্ষককে বিদায়ী সংবর্ধনাসৈয়দপুর ক্রীড়া সংস্থা চ্যাম্পিয়ন রানার আপ পৌরসভা একাদশ

বিশ্বনাথে মাটিজুড়া নদীতে বিষ প্রয়োগে মাছ মারার মামলায় আটক-১

ফারুক আহমেদ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ, ২০২২
  • ৮৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সিলেটের বিশ্বনাথে ‘মাটিজুড়া নদী’তে বিষ প্রয়োগে প্রায় ১০ লাখ টাকার মাছ মারার ঘটনায় থানায় দায়েরকৃত মামলায় উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের জগদীশপুর গ্রামের মৃত মখলিছ আলীর পুত্র আলতাব হোসেন ওরফে আলতা (৪৫)’কে মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) ভোরে নিজ বাড়ি থেকে আটক করেছে পুলিশ।



উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের জগদীশপুর গ্রামের মখলিছ আলীর পুত্র জুবেল মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলাটি দায়ের করে ছিলেন। মামলা নং ১৮ (তাং ২৩.০২.২২ইং)।

মামলার লিখিত অভিযোগে বাদী জুবেল মিয়া উল্লেখ করেছেন, প্রায় ৫/৬ মাস পূর্বে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের কাছ থেকে মাটিজুড়া নদী লিজ আনেন জনৈক মুহিবুর রহমান। আর ২/৩ মাস পূর্বে মুহিবুর রহমান সাড়ে ৩ লাখ টাকায় বাদীর কাছে বিক্রয় করেন। বাদী লিজ আনিয়া গত ১ ফেব্রুয়ারী মেশিন লাগিয়ে সেচ শুরু করেন। মাটিজুড়া নদী বাদী লিজ আনার পর থেকে কিছু অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি তার (বাদী) ক্ষতিসাধন করতে তৎপর হয়ে উঠে। বাদী যাতে নদী থেকে মাছ শিকার না করতে পারেন সেজন্য অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা নদীতে থাকা কচুরিপানা কেটে ও নদীতে থাকা কাটা তুলে নিয়ে যায়।

এরপর গত ৩ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত ৩টা থেকে সকাল ৬টার মধ্যে যেকোন এক সময়ে বাদীর লিজকৃত নদীতে বিষ প্রয়োগ করে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ১০ লাখ টাকা মূল্যের মাছ মেরে (হত্যা) করে ফেলে। বাদীসহ স্বাক্ষীরা সকাল ৬টার দিকে পানি সেচসহ মাছ শিকারে গেলে দেখতে পান নদীর সব মাছ মরে ভেছে উঠেছে এবং কিছু মাছ বিষের প্রভাবে দৌড়াদৌড়ি করছে। বাদী তখন সে মাছগুলোকে বাঁচানোর জন্য মুহিবুর রহমানের কাছ থেকে এনে ২০/২৫ প্যাকেট অক্সিজেন ট্যাবলেট নদীতে প্রয়োগ করেন। এরপরও নদীর মাছ বাঁচাতে পারেননি বাদী। বিকেলের দিকে সব মাছ মরে ভেসে উঠে। বাদী বিষয়টি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানান এবং বিষ প্রয়োগে মাছ মারার সাথে আলতাব ও সালাম নামের দুজনকে সন্দেহজনক বলে অবহিত করেন। এরপর এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা ওই দুজনকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদও করেন।

এসময় আলতাব-সালাম বিষয়টি আপোষ মিমাংশায় সমাধান করবে বলে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে জানালেও পরবর্তিতে তারা তা না করায় বাদী ন্যায় বিচার পাওয়ার আশায় থানা মামলাটি দায়ের করেছেন মর্মে তার দায়েরকৃত মামলার লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেছেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000