সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সিটি কর্পোরেশন সহ সিলেটের ৩২টি অফিসের বিরুদ্ধে বেশি অভিযোগ দুদকের গণশুনানিতেসিলেট জেলার ৩টি উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হলেন যারাখাজাঞ্চী ইউপি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রীতিগঞ্জ বাজারে স্হাপনের দাবিতে বিশ্বনাথে সভাভোট স্থগিত: কিশোরগঞ্জে কেন্দ্রে ঢুকে ভাঙ্চুর অগ্গিসংযোগ ব্যালট বাক্স ছিনতাই আহত-৩০স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ সমাবেশ পটুয়াখালীর দুমকিতেনীলফামারীর সৈয়দপুরে ইজিবাইকের চাপায় বৃদ্ধ নিহতকুমিল্লার দেবীদ্বার সরকারি হাসপাতাল পরিদর্শন করেন দেবীদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদসকাল হলেই সিলেট বিভাগের ৭৭টি ইউনিয়নে ভোট যুদ্ধসেমিনার করলো এবিসি ইংলিশ ইনষ্টিটিউট বিশ্বনাথেউপজেলা চেয়ারম্যান নুনু মিয়া বিশ্বনাথে শীত বস্ত্র বিতরণ করেছেন

বিশ্বনাথে চার দিন ধরে নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ মিললো সুরমা নদীতে

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৫ জুলাই, ২০২১
  • ১০৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ফারুক আহমদ: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী রাজাপুর থেকে নিখোঁজের চার দিন পরে মালেক মিয়া (৬৩) ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
উদ্ধারের সময় লাশটি সুরমা নদীতে উপুর হয়ে ভাসমান ছিল।

রোববার ৪ঠা জুলাই বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়ন’র সুরমা নদীর দক্ষিন পারে আতাপুর’র ডর থেকে লাশটি উদ্ধার করে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ।
মালেক মিয়া (৬৩) (বর্তমান ঠিকানা) উপজেলার রাজাপুর গ্রামে। তার পিতার নাম মৃত জয়দুল্লা। তিনি স্হানীয় একটি বাজারে স্ব-মিলে কাজ করতেন।

থানা-পুলিশ স্হানীয় ও নিহতের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়। গত ৩০ জুন বিকাল ৫ ঘটিকার সময় বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি মালেক মিয়া।
তার খোঁজ খবর না পাওয়ায় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় ২ জুলাই একটি সাধারন ডায়েরী (জিডি) করা হয়। ডায়েরী নং ৬৫/ ০২-০৭-২১।

আজ রবিবার সকাল সাড়ে ১০ ঘটিকায় সুরমা নদীতে লাশ ভাসমান অবস্থায় দেখতে পান স্থানীয়রা।
পরে স্থানীয় লোকজন থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। তাৎক্ষনিকভাবে খবর পেয়ে বিশ্বনাথ থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করে।

সুরমা নদী থেকে লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার লামাকাজী এলাকাস্থ সুরমা নদীতে নৌকার উপর আব্দুল মালেকসহ কয়েকজন জুয়া খেলছিলো।
এসময় গ্রামের লোকজন গরু চোর সন্দেহে চিৎকার করলে গ্রাম ও এলাকাবাসী বেরিয়ে আসলে অন্যরা নদী সাঁতার কেটে পালিয়ে গেলেও আব্দুল মালেক পানিতে তলিয়ে মারা যায়। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। তবে নিহতের শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি বলে জানান।

নদী থেকো লাশ উত্তোলনের সময় উপস্হিত ছিলেন এডিশনাল এসপি মিয়া মো. আশিস বিন হাসান, তদন্ত কর্মকর্তা রমা প্রসাদ চক্রবর্তী, থানার সেকেন্ড অফিসার অরুপ সাগর, স্হানীয় চেয়ারম্যান কবির হোসেন ধলা মিয়া, এস আই গোপেশ চন্দ্র, ফখরুল ইসলাম, ডিএসপি সবুজ, মেম্বার নুরুজ্জামানসহ এলাকার শতাধিক লোক।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000