শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০২:০৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বিশ্বনাথে ৩ শতাধিক প্রতিবন্ধীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন নুনু মিয়াবেগম খালেদা জিয়া কে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে নীলফামারীর সৈয়দপুরে বিএনপির বিক্ষোভসিলেটে বন্যার্তদের নগদ অর্থ ও ত্রাণ বিতরণ করলেন প্রবাসী কমিউনিটি নেতা শফিক উদ্দিনকুমিল্লার দেবীদ্বার থানার মানবিক অফিসার ইনচার্জ প্রত্যাহারে সাধারণ মানুষের ক্ষোভ প্রকাশবিশ্বনাথে দশঘর ইউনিয়নে বন্যার্তদের ত্রাণ বিতরণ করলেন এসএম নুনু মিয়াওসমানীনগরে ২কোটি টাকা মূল্যের তিনতলা বাসা দখল নিয়ে দু’পক্ষের উত্তেজনাপররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সক্রিয় সম্পৃক্ততার আহ্বানবিশ্বনাথে ‘হাজী তেরা মিয়া ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট’র পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণজামালপুরের বকশীগঞ্জে অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিতমৌলভীবাজার মুনিয়া নদী থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার

পটুয়াখালীতে বিদ্যুতের খুটি নিয়ে মারধরের জেড়ে অন্তঃসত্ত্বার পেটে আঘাতে বাচ্চার মৃত্যু

মোঃমিজানুর রহমান,পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১ আগস্ট, ২০২১
  • ১৭৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

পটুয়াখালী সদর উপজেলাধীন মরিচবুনিয়া ইউনিয়নের মরিচবুনিয়া গ্রামে পল্লীবিদ্যুতের খুটি নিয়ে দ্বন্দ্বে দুই পক্ষের মারামারিতে ঝড়ে গেছে একটি নিষ্পাপ নবজাতকের প্রাণ।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, মরিচবুনিয়া ইউনিয়নের মরিচবুনিয়া গ্রাম নিবাসী আঃ রব গাজী (৫৫) এর সাথে তারই ভাই সুলতান গাজী (৫৩) এর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো।
গত ১৬ জুলাই (শুক্রবার) বিকেল আনুঃ ৩:০০ টার সময় আঃ রব গাজীর পরিবার এবং সুলতান গাজীর পরিবারের সদস্যদের মধ্যে পল্লী বিদ্যুতের খুটি বসানোকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয় এবং তা শেষ পর্যন্ত মারামারিতে রূপ নেয়।

জানা যায়, আঃ রব গাজী ও সুলতান গাজী আপন ভাই হওয়ায় তারা পাশাপাশি বসবাস করে। এদিকে বাংলাদেশ পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি পটুয়াখালী থেকে নতুন পল্লী বিদ্যুতের খুটি স্থাপন করে। সেই খুটি থেকে পল্লী বিদ্যুৎ কতৃপক্ষ আঃ রব গাজীর বসত ঘরে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিলে সুলতান গাজী এবং তার পরিবারের সদস্যরা বিরূপ মনোভাব পোষণ করে আসছিলো।

১৬ জুলাই ঘটনার দিন উভয় পক্ষে ঝগড়ার এক পর্যায়ে সুলতান গাজীর ছেলে সেলিম গাজী (৩৫) আঃ রব গাজীর ছেলে মোঃ রবিউল গাজীকে দা দিয়ে কোপ দেয় এবং তাতে রবিউল গাজীর মাথার সামনের অংশে পড়লে মারাত্মক জখম হয়। এদিকে সুলতান গাজী কাঠের রুয়া দিয়ে রবিউল গাজীকে আঘাত করিলে তা বাম পায়ের হাটুর উপর পরে। রবিউল গাজীর স্ত্রী পারভীন বেগম (২৮) রবিউল গাজীকে রক্ষা করতে আসলে সুলতান গাজীর আরেক ছেলে খোকন গাজী (২৫) বাশের লাঠি দিয়ে পারভীন বেগমকে পিটাইতে থাকে এবং তার তলপেটে লাথি মারে। পারভীন বেগম অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তার পেটের বাচ্চার মারাত্মক ক্ষতি হয়। মারাত্মক অবস্থায় তাকে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং ১ আগষ্ট (রবিবার) বিকাল ৬:০০ টায় তিনি একটি মৃত সন্তান প্রসব করেন। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং তিনি তার সন্তান হত্যার বিচার দাবী করেছেন।

এদিকে ১৮ জুলাই (রবিবার) আঃ রব গাজী ৭ জনকে আসামী করে পটুয়াখালী বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৩ ধারা সহ কয়েকটি ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৭১৯/২০২১। মামলায় সকল আসামীদের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট হলে পুলিশ মামলার ১নং আসামী সেলিম গাজীকে গ্রেফতার করে এবং বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে বাকি ৬ জন আসামী এখনও গ্রেফতার হননি। এ বিষয়ে পটুয়াখালী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আখতার মোর্শেদ বলেন, বাদী পক্ষ আমার নিকট এসেছিলো। শিঘ্রই মামলার বাকি আসামীদের বিরুদ্ধে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000