বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বিশ্বনাথে ‘হাজী তেরা মিয়া ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট’র পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণজামালপুরের বকশীগঞ্জে অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিতমৌলভীবাজার মুনিয়া নদী থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধারমৌলভীবাজারের রাজনগরে গ্রীল ভেঙে ঘরে ঢুকে গরু চুরিবিশ্বনাথে কলেজ ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত : আটক ১বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করলেন শফিক চৌধুরীনীলফামারীর সৈয়দপুরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কে হত্যার হুমকি প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভমৌলভীবাজারের রাজনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় ১জন নিহতবিশ্বনাথের রামপাশা ইউনিয়নে বন্যার্তদের মধ্যে অ্যাডভোকেট গিয়াসের চাল বিতরণরাজনগরে সম্পন্ন হলো অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কর্মশালা

পটুয়াখালীতে পাওনাদারের বাড়িতে স্বামীর লাশ নিয়ে স্ত্রীর অবস্থান

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১
  • ২৫৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মোঃমিজানুর রহমান, পটুয়াখালী প্রতিনিধি: পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার লতাচাপলী ইউনিয়নের দীর্ঘ দুই বছর ধরে পাওনা টাকা না দেয়ায় চিকিৎসার অভাবে সুনীল চন্দ্র দাস নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে আলীপুরের নিজ বাড়িতে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়।

পরে শনিবার সকাল নয়টা থেকে লাশ নিয়ে স্বজনরা দেনাদার ইউসুফ মুসল্লির ঘরের সামনে অবস্থান করেন। এ ঘটনাটি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

নিহত সুনীল চন্দ্র দাসের স্ত্রী মাধুরী দাস জানান, জমি দেয়ার কথা বলে ২ বছর আগে ১১ লাখ টাকা নেয় ইউসুফ। তার স্বামীর অসুস্থতার মধ্যেও বেশ কয়েকবার টাকা দেয়ার ওয়াদা দিলেও টাকা দেননি। দীর্ঘদিন ধরে টাকা ফিরিয়ে দেয়ার বেশ কয়েকটি ওয়াদা দেন তিনি। এ নিয়ে এলাকার চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সালিশ করলেও টাকা পাননি সুনীল দাস। পরে টাকার শোক সইতে না পেরে শুক্রবার রাতে তার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, নিহত সুনীল জমি কেনার জন্য ইউসুফ মুসল্লিকে টাকা দিয়েছিলেন। এ নিয়ে আমরা সালিশ বৈঠক বসলেও টাকা ফেরত দেননি। আমার জানা মতে, সুনীল অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে। শনিবার সকাল থেকে নিহতের স্বজনরা লাশ নিয়ে ইউসুফ মুসল্লির বাড়ির সামনে অবস্থান করেন। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের চেষ্টা করছি।

এ বিষয়ে ইউসুফ মুসল্লির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান সাংবাদিদের জানান, ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিলে স্বজনরা লাশ ফিরিয়ে নিয়ে যায়। তবে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000