বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বিশ্বনাথের লামাকাজীতে ২নং ওয়ার্ডে চেয়ারম্যান প্রার্থী আছকিরের উঠান বৈঠকবিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যানের মায়ের সুস্থতা কামনায় মিলাদ ও দোয়ানীলফামারীর সৈয়দপুরে ১০০ শয্যা হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স দুইটিই রোগাক্রান্ত, চিকিৎসার উদ্যোগ নেইশাবির ঘটনায় পটুয়াখালীর দুমকিতে ছাত্রদলের প্রতিকী অনশনআন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের আর্থিক লেনদেনের ছয়টি অ্যাকাউন্ট বন্ধের অভিযোগবিশ্বনাথের লামাকাজীতে ‘ঘোড়া’ প্রতিকের নির্বাচনী মিছিল ও সভাদুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পটুয়াখালীতে বহুযাত্রী আহতসিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান নুনু মিয়া’র মা গুরুতর অসুস্হ, দোয়ার আরজিবিশ্বনাথে নির্বাচনী আচরণবিধি অবহিতকরণ ও মতবিনিময় সভাসিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা

নীলফামারীর সৈয়দপুরে ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষে ৬ জন আহত

মোঃজাকির হোসেন,নীলফামারী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৪০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নীলফামারীর সৈয়দপুরে ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছে। জাল ভোটের গুজবে দুই মেম্বার প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।



রোববার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের ডাঙ্গাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের এ ঘটনায় আহতরা হলো মুসা মামুদের (তালা মার্কা) এর কর্মী আল আমিন (২১), মুসা (১৯) ও লাবু (২৩) এবং আতিউল (ফুটবল মার্কা) এর কর্মী জসিম (২৮), রশিদুল (১৮) ও কালা (২৩)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল থেকেই অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। দুপুর আনুমানিক ১ টার দিকে মেম্বার প্রার্থী মুসা মামুদের একজন মহিলা এজেন্ট বুথ থেকে বের হয়ে চিৎকার করে বলেন জাল ভোট দিতে এসে এক মহিলা ধরা পড়লেও প্রশাসন সহযোগীতা না করায় পালিয়ে গেছে।

এমন খবরে উপস্থিত কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তারা ভোটের বুথে ঢোকার চেষ্টা করে। এতে প্রতিপক্ষ আতিউরের লোকজনও শোরগোল শুরু করলে উভয়ের মাঝে বাক বিতণ্ডা লাগে। এমতাবস্থায় পুলিশ ও আনছাররা লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ফলে দুই পক্ষ দুই দিকে সরে যায়।

এর কয়েক মিনিট পরে আবারও হুজুগ উঠে যে আতিউরের লোকজন ভোটের ব্যালট বাক্স ছিনতাই করে নিয়ে যাচ্ছে। এতে আবারও উত্তেজিত হয়ে ছুটে আসে মুসা মামুদের লোকজন। এসময় বাধা দেয় আতিউর পক্ষ। ফলে কেন্দ্রের বাইরে হাতাহাতি শুরু হয়।

এরই এক পর্যায়ে অতর্কিত বাঁশের লাঠি দিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় তারা। প্রায় ১ ঘন্টা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে উপরোল্লিখিতরা গুরুতরভাবে জখম হয়। এছাড়াও আরও প্রায় ৩০-৩৫ জন আহত হয়েছেন।

পরে খবর পেয়ে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এসে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে এলাকায় উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও আবারও সংঘর্ষের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000