বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০৩:০৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
বিশ্বনাথে ‘হাজী তেরা মিয়া ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট’র পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণজামালপুরের বকশীগঞ্জে অটিজম ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিতমৌলভীবাজার মুনিয়া নদী থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধারমৌলভীবাজারের রাজনগরে গ্রীল ভেঙে ঘরে ঢুকে গরু চুরিবিশ্বনাথে কলেজ ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত : আটক ১বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করলেন শফিক চৌধুরীনীলফামারীর সৈয়দপুরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কে হত্যার হুমকি প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভমৌলভীবাজারের রাজনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় ১জন নিহতবিশ্বনাথের রামপাশা ইউনিয়নে বন্যার্তদের মধ্যে অ্যাডভোকেট গিয়াসের চাল বিতরণরাজনগরে সম্পন্ন হলো অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কর্মশালা

নীলফামারীর নীলকুঠি ধ্বংসের মুখে

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৯৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ধ্বংসের মুখে দাঁড়িয়ে আছে নীলফামারীর ঐতিহ্য বাহি নীলকুঠি। উনবিংশ শতাব্দী বৃটিশ আমলে নির্মিত নীলফামারীর এই নীলকুঠি কালের বির্তনে এটি এখন ধ্বংসের মুখে দাড়িয়ে রয়েছে।

বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষন করে জানা যায়, নীলফামারী শহর থেকে ৪ কিলোমিটার উত্তরে নটখানা নামক স্হানে বৃটিশরা এই নীলকুঠি টি তৈরি করেন। সে সময় নীলফামারীতে তথা নটখানাতে প্রচুর পরিমানে নীল চাষ হত। তখন এই নীল সারাবিশ্বে অনেক সুনাম ছিল। বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র প্রধানরা এখান থেকে নীল সংগ্রহ করতো।

তবে একসময় চাষীরা নীলচাষ বন্ধ করে দিলে তখন তাদের উপর নির্মম ভাবে অত্যাচার করা হতো এবং চাষীদেরকে এখানে এনে লটখানা ( লটের মধ্যে ঝুলে রাখা ) করে রেখে দিত বৃটিশরা। আর তখন থেকে লটখানা নামে পরিচিত ছিল এই নীলফামারী।

তবে কালের বির্বতনে এর পরিবর্তন হতে শুরু করলে নটখানা থেকে এর নাম হয় নীলখামারী পরবর্তীতে এর নাম হয় নীলফামারী।

তবে যাকে নিয়ে এই নীলফামারী জেলার উৎপত্তি সেই নীলকুঠির নেয়া হয় না কোন যত্ন। করা হয় না সংস্কার। সংস্কার না করার কারনে এটি এখন ধ্বংসের মুখে দাড়িয়ে আছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000