বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নবীগঞ্জে হামিদুর রহমান হিলালের দ্বিতীয় বইয়ের মোড়ক উন্মোচনপটুয়াখালীতে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এর জন্মদিন পালিতদুমকিতে বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক সমন্বয় সভারাজনগরের জোড়া খুনের ৫আসামী গ্রেফতারবকশীগঞ্জে বিনামূল্যে সার ও মাসকালাই বীজ বিতরণরাজনগরের সোনাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হলেন সাংবাদিক আব্দুল হাকিম রাজসৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে আল্ট্রা সনোগ্রাম মেশিন থাকলেও সেবা থেকে বঞ্চিত রোগীরাবিশ্বনাথ পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে সিভি জমা দিলেন ১০ আ’লীগ নেতাবিশ্বনাথ পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থী মো. দবির মিয়া সকলের দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেনসিলেট-সুনামগঞ্জ মহা সরক দূর্ঘটনায় নিহত ১ আহত ২

নির্বিচারে গুলি করছে মিয়ানমার সামরিক বাহিনী, রক্ষা পায়নি ৭বছরের শিশুও

অনলাইন ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১
  • ৩৪৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নির্বিচার গুলি চালাচ্ছে মিয়ানমার সামরিক বাহিনী।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) সাতবছরের একটি শিশু মেয়েকে গুলি করেছে। একইসঙ্গে গত কয়েক সপ্তাহে বহু মানুষ মেরেছে। বিক্ষোভ থামাতে আরও কত পদক্ষেপ। এরপরও থেমে নেই জনগণ। বরং কঠোর থেকে কঠোরতর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি তাদের। তবে এবার ধরন পাল্টাচ্ছে বিক্ষোভের।

অভিনব ও নতুন নতুন বিক্ষোভ পরিকল্পনার সর্বশেষ ধরন ‘নীরব ধর্মঘট’। রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, বুধবার মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভের আরও পরিকল্পনা করেছেন। ‘নীরব ধর্মঘট’ অর্থাৎ ‘অল শাটডাউন’ করবেন তারা। ঘর থেকে বের হবেন না, কোনো ধরনের ব্যবসার সঙ্গে জড়াবেন না, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানও বন্ধ রাখবেন। ইতোমধ্যে জনসাধারণকে তারা ঘরে থাকার আহ্বানও জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার মান্দালয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর কঠোর ব্যবস্থার কারণে আরও কয়েকজন মারা গেছেন। গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের পর এ পর্যন্ত প্রায় ২৬১ জন প্রাণ হারিয়েছেন নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে। তাতেও বিক্ষোভকারীদের পিছু নামাতে পারেনি। তবে মঙ্গলবার নিজের ঘরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে একটি সাতবছরের শিশু মারা যাওয়ার পর বিকল্প কৌশল বিক্ষোভকারীদের।

দুঃখপ্রকাশ করে এক ব্যক্তি রয়টার্সকে বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে সাতবছরের একটি শিশু মারা গেছে। গত ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে রক্তক্ষয়ী যত ঘটনা ঘটেছে, এরমধ্যে সবচেয়ে নির্মম এটি। কনিষ্ঠতম একজন ভিকটিম।

প্রতিবেদন বলছে, সেনা সদস্যরা মেয়েটির বাবাকে গুলি করেছিলেন। কিন্তু মেয়েটি বাড়ির ভেতরে তার বাবার কোলে বসেছিল; সে-ই গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তার বোন সংবাদমাধ্যম মিয়ানমার নাও-কে বিষয়টি জানান। এছাড়া এ জেলায় মঙ্গলবার আরও দুইজনকে হত্যা করা হয়।

যদিও সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে এ ঘটনায় এখনও কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

রয়টার্স বলছে, মিয়ানমারের রাস্তায় এখন নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে প্রায়ই ‘মৃত্যু খেলা’ হচ্ছে। ‘ইঁদুর-বিড়ালের’ মতো লড়াইয়ে মারাত্মক পরিস্থিতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই গণতন্ত্রপন্থিরা কৌশল অবলম্বন করেছেন। বুধবার নীরব ধর্মঘট করার পরিকল্পনা নিয়েছেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000