সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান বিভাগের সিনিয়র সচিবের দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনজায়েদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সৎ ও মেধাবী হওয়ার সাথে সাথে উত্তম চরিত্র গঠন করতে হবে তালামিয কর্মীদের—প্রতিবছরই নেওয়া লাগতে পারে করোনার টিকাএকাধিক মামলার আসামী মাদক ব্যবসায়ী রাশেল মিয়া ওরফে সুমন গ্রেফতারমুজতবা হাসান চৌধুরী নুমান বলেছেন একটি আদর্শ সমাজ গঠনে এক দল পরিশুদ্ধ মানুষ প্রয়োজনবিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে বিশ্বনাথের মাকুন্দা নদীতে নৌ-যাত্রা৩ সপ্তাহ যাওয়ার ৩ তিন কোটি টাকার রাস্তায় ফাটলউত্তর কুশিয়ারা আন্তর্জাতিক অনলাইন গ্রুপের বাংলাদেশ সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে সাইদুল ইসলাম মিনুরকে সংবর্ধনা প্রধানবিদ্যালয়ের ভবন উদ্ভোধন উপলক্ষ্যে বিশ্বনাথে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলচেতনানাশক খাইয়ে পটুয়াখালীতে তাবলীগ জামাত সদস্যদের মালামাল লুট

দুর্ভোগে দুমকি উপজেলাবাসী, সিভিল সার্জনের খামখেয়ালীপনায়

মোঃমিজানুর রহমান, পটুয়াখালী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত এলাকাবাসী। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয়ে জনবল ঘাটতি থাকলেও গুরুত্ব দিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
জানা গেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শৈল্য বিশেষজ্ঞ, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ, আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার, মেডিক্যাল অফিসার, দন্ত চিকিৎসক, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা, সিনিয়র স্টাফ নার্স, মিড ওয়াইফসহ ১৪জন ডাক্তার ও কর্মকর্তার পদ শূন্য থাকার কারণে স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ। এছাড়া বাকেরগঞ্জ উপজেলার নলুয়া, কলসকাঠী, লক্ষীপাশা ও কবাই ইউনিয়নের জনসাধারণও এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে চিকিৎসা নিচ্ছে। অ্যাম্বুলেন্সযোগে দুমকি হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগী সেবা না পেয়ে হাসপাতাল থেকে রেফার নিয়ে পটুয়াখালী অথবা বরিশালে যেতে হয়। সামান্যতম সেবা ছাড়া এখানে বড় কোনো ধরনের সেবা পাচ্ছে না।
এদিক, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘদিন ধরে এক্স-রে মেশিনসহ অন্যান্য ল্যাবে যন্ত্রপাতি থাকলেও নেই পরিচালনার জন্য প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত জনবল। যার ফলে চিকিৎসা সেবা সঠিকভাবে দিতে পারছে না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। দুমকিতে কোনো ভালো ল্যাব না থাকায় ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী পটুয়াখালী অথবা বরিশাল গিয়ে ল্যাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রিপোর্ট নিয়ে আসতে হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মীর শহিদুল ইসলাম শাহীন বলেন, এরই মধ্যে গত ২৫ আগস্ট পটুয়াখালী সিভিল সার্জনের কাছে ডাক্তার ও নার্সদের কর্মরত ও শূন্য পদের চাহিদা প্রেরণ করা হয়েছে।
সিভিল সার্জন পটুয়াখালী ডা. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘অতি দ্রুত দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জনবল কাঠামো পূরণ হবে বলে আশা করছি।’

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000