সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান বিভাগের সিনিয়র সচিবের দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনজায়েদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সৎ ও মেধাবী হওয়ার সাথে সাথে উত্তম চরিত্র গঠন করতে হবে তালামিয কর্মীদের—প্রতিবছরই নেওয়া লাগতে পারে করোনার টিকাএকাধিক মামলার আসামী মাদক ব্যবসায়ী রাশেল মিয়া ওরফে সুমন গ্রেফতারমুজতবা হাসান চৌধুরী নুমান বলেছেন একটি আদর্শ সমাজ গঠনে এক দল পরিশুদ্ধ মানুষ প্রয়োজনবিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে বিশ্বনাথের মাকুন্দা নদীতে নৌ-যাত্রা৩ সপ্তাহ যাওয়ার ৩ তিন কোটি টাকার রাস্তায় ফাটলউত্তর কুশিয়ারা আন্তর্জাতিক অনলাইন গ্রুপের বাংলাদেশ সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে সাইদুল ইসলাম মিনুরকে সংবর্ধনা প্রধানবিদ্যালয়ের ভবন উদ্ভোধন উপলক্ষ্যে বিশ্বনাথে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলচেতনানাশক খাইয়ে পটুয়াখালীতে তাবলীগ জামাত সদস্যদের মালামাল লুট

জমি নিয়ে বিরোধে হত্যা চেষ্টায় সৈয়দপুরে ৩ জন গুরুতর আহত, জড়িতদের বিচার দাবী

মোঃজাকির হোসেন,নীলফামারী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৬০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নীলফামারীর সৈয়দপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শহরের একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবী করেন ভুক্তভোগীরা।

তারা জানান, গত ১১ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় মিস্ত্রিপাড়া এলাকায় এ হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটে। প্রতিপক্ষের পরিকল্পিত হামলায় ৩ জন গুরুতরভাবে আহত হয়েছে। আহত নুসরাত জাহান ও মোছাঃ সাগুপ্তা ইয়াসমিন প্রাথমিক চিকিৎসা নেয় ও শাকিল আদনান টিপু গুরুতর আহত অবস্থায় ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি আছে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

সেই অভিযাগ সূত্রে জানা যায়, মিস্ত্রিপাড়া মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায় মৃত সুলতানের স্ত্রী মৃত জুলেখা খাতুনের কবলাকৃত ৬ শতক জমি রয়েছে। যার দাগ নং- সিএস ৩২৮৯, এসএ- ৩৩১৭, বিএস- ৪৫৫৫। খতিয়ান নং- সিএস- ১৭৪৩, এসএ- ২১০৫, বিএস- ২১৪৫। মৃত জুলেখা খাতুনের একমাত্র অংশিদার মেয়ে মোছাঃ মোসাররত খাতুন।

উল্লেখিত জমিতে মৌখিকভাবে বসবাস করে আসছে জুলেখার সতিনের ছেলে মোঃ শাকিল ও মোঃ কামরান। ইতিপূর্বে তাদের বাড়ী ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য বারবার বলার পরও কোন কর্ণপাত করেনি। বরং জোর করেই সেখানে বসবাস করত। মোসাররত খাতুন ঐ জমিতে বাউন্ডারী ওয়ালের নির্মান কাজ করে। চাকরীসূত্রে ঢাকায় থাকা শাকিল ১১ নভেম্বর ভোরে ফিরে এসেই সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়।

ওই দিন মোসাররত খাতুনসহ তার সন্তানরা সকাল ১১ টা ৩০ মিনিটে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের কাছে দেওয়াল ভাঙ্গার কারণ জানতে চাইলে তারা মারমুখি আচরণ করে ও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকে। প্রতিবাদ করায় শাকিল, কামরান, সাবানা, ওয়ায়েস, নিঝুম, সোহাগ মিলে দেশি অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারী মারডাং করে এবং পরনের কাপড় ছিড়ে শ্লীলতাহানি করে।

হত্যার উদ্দেশ্যে গলা টিপে ধরলে টিপু ছাড়াতে গেলে তাকেও দেশিও অস্ত্র দিয়ে মারডাং করে মাথায় আঘাতে রক্তাক্ত হলে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসলে শাকিলগং সরে যায়। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় ১০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। গুরুতর অবস্থায় টিপুকে স্থানীয় ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তিকরানো হয়। নুসরাত ও সাগুপ্তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ফজলে রাব্বী জানায়, বিবাদীদের নামে নারী শিশুর মামলা রয়েছে। ঢাকাতে শাকিলের নামে মামলা রয়েছে এবং সে পলাতক রয়েছে। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000