মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৩:০১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করলেন শফিক চৌধুরীনীলফামারীর সৈয়দপুরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কে হত্যার হুমকি প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভমৌলভীবাজারের রাজনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় ১জন নিহতবিশ্বনাথের রামপাশা ইউনিয়নে বন্যার্তদের মধ্যে অ্যাডভোকেট গিয়াসের চাল বিতরণরাজনগরে সম্পন্ন হলো অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কর্মশালাছাতকের মরহুম আপ্তাব আলী তালুকদারের ২য় মৃত্যু বার্ষিকী আজবালাগঞ্জের গালিমপুর হরুননেছা খানম উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি পদে আউয়াল নির্বাচিতবন্যার্তদের মাঝে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে আর রাহমান এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের ত্রাণ বিতরণএলাকায় বন্যা নয় তবুও পানি বন্দী ,ভোগান্তিতে অসহায় পরিবাররাজনগরে বায়োফ্লক মৎস্য চাষ বিষয়ক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে গ্রেফতার করেছে

সফিকুল ইসলাম রাজা,গাইবান্ধা প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট, ২০২১
  • ৯০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামাল হোসেন ওরফে এমদাদুল হক নামে এক ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে গাইবান্ধা থেকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার ভোর রাতে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ এ অভিযান চালান।

পুলিশ জানায়, গ্রেফকারকৃত এমদাদুল হক দীর্ঘদিন ধরে জামাল হোসেন নাম ব্যবহার করে নিজেকে এমবিবিএস, এফসিপিএস (ফিজিক্যাল এ- রিহ্যাবিলিটেশন) ডাক্তার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ক্লিনিক ও ফার্মেসিতে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে আসছিলেন। চাকুরি দেয়ার নাম করে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে প্রতারণা করছিলেন।

এছাড়া গত বৃহস্পতিবার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত কেমিকো ফার্মাসিটিকেল লিমিটেডের মেডিকেল প্রোটাকশন অফিসার জুলফিকার হাবিবের মোটর সাইকেল নিয়ে এক ফার্মেসি থেকে অষুধ আনার কথা বলে পালিয়ে গেলে পরদিন শুক্রবার ডাক্তার এমদাদুল হকের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ করেন। পুলিশ তদন্ত চালিয়ে জানতে পারেন তিনি একজন ভূয়া ডাক্তার। তার কোন ডাক্তারী সার্টিফিসুন্দরগঞ্জে ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তার গ্রেফতার

সফিকুল ইসলাম রাজা, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামাল হোসেন ওরফে এমদাদুল হক নামে এক ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তারকে গাইবান্ধা থেকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার ভোর রাতে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ এ অভিযান চালান।
পুলিশ জানায়, গ্রেফকারকৃত এমদাদুল হক দীর্ঘদিন ধরে জামাল হোসেন নাম ব্যবহার করে নিজেকে এমবিবিএস, এফসিপিএস (ফিজিক্যাল এ- রিহ্যাবিলিটেশন) ডাক্তার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ক্লিনিক ও ফার্মেসিতে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে আসছিলেন। চাকুরি দেয়ার নাম করে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে প্রতারণা করছিলেন। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় কর্মরত কেমিকো ফার্মাসিটিকেল লিমিটেডের মেডিকেল প্রোটাকশন অফিসার জুলফিকার হাবিবের মোটর সাইকেল নিয়ে এক ফার্মেসি থেকে অষুধ আনার কথা বলে পালিয়ে গেলে পরদিন শুক্রবার ডাক্তার এমদাদুল হকের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ করেন। পুলিশ তদন্ত চালিয়ে জানতে পারেন তিনি একজন ভূয়া ডাক্তার। তার কোন ডাক্তারী সার্টিফিকেট নেই। তিনি একসময় ঢাকায় এক ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে কর্মচারি হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। মঙ্গলবার ভোর রাতে পুলিশ গাইবান্ধা সদর উপজেলার মালিবাড়ী বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করেন। ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তার জামাল হোসেন ওরফে এমদাদুল হক কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার নাখারগঞ্জ চওড়াটারী গ্রামের ময়েন উদ্দীনের ছেলে। থানার ওসি আব্দুল্লাহিল জামান জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।কেট নেই। তিনি একসময় ঢাকায় এক ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে কর্মচারি হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। মঙ্গলবার ভোর রাতে পুলিশ গাইবান্ধা সদর উপজেলার মালিবাড়ী বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করেন। ভুয়া এমবিবিএস ডাক্তার জামাল হোসেন ওরফে এমদাদুল হক কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার নাখারগঞ্জ চওড়াটারী গ্রামের ময়েন উদ্দীনের ছেলে। থানার ওসি আব্দুল্লাহিল জামান জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000