শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:৩৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস্ প্রতিযোগিতার উদ্ভোধনসৈয়দপুরে সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন সরকারসহ ৩ বিএনপি নেতার স্মরনসভা অনুষ্ঠিতমিরেরচরেই হবে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ -বিশ্বনাথে এমপি মোকাব্বিরনীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ভূয়া এনএসআই সদস্যসহ আটক-২ওসমানীনগরের নবগ্রাম স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ কমিটি গঠনবাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা কমিটি গঠনসৈয়দপুরে বিসিক শিল্পনগরীতে প্লাইউড কারখানায় আগুনে কোটি টাকার ক্ষতিজামায়াত আমীর ডাঃ শফিকুর রহমানকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে লন্ডনে বিক্ষোভ সমাবেশছাতকের খুরমা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবসে আলোচনা সভানীলফামারীর সৈয়দপুরে মহান বিজয় দিবস পালিত

গরু ধান খাওয়ার অভিযোগে মুসলিম বিধবা বৃদ্ধার চুল কেটে দিয়েছে প্রভাবশালী হিন্দু পরিবার সৈয়দপুরে

মোঃজাকির হোসেন,নীলফামারী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২২৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নীলফামারীর সৈয়দপুরে গরু ধান খাওয়ার অভিযোগে মুসলিম বিধবা বৃদ্ধার চুল কেটে দিয়েছে প্রভাবশালী হিন্দু পরিবার।



গরু ক্ষেতের ধান খাওয়ার অভিযোগে বেধরক মারপিট করে এক বিধবা বৃদ্ধার মাথার চুল কেটে দিয়েছে প্রভাবশালী ও বিত্তবান হিন্দু পরিবার। গত ১৩ ডিসেম্বর সোমবার বিকাল ৫ টায় নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলী বুড়িরবাজার জেলেপাড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।নিগ্রহের শিকার বৃদ্ধার নাম কফুরন বেওয়া (৭২)। তিনি উত্তর সোনাখুলী সমলাপাড়ার মৃত হোসেন আলীর স্ত্রী।

ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে। একজন বিধবা মুসলিম নারীর উপর এমন অমানবিক নির্মম নির্যাতন ও অপমানের প্রতিবাদে এবং এজাহার ভুক্ত প্রধান আসামী পলাতক স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতারের দাবীতে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বিধবার বড় ছেলে কেতাব উদ্দিন সৈয়দপুর থানায় সোমবার রাতেই লিখিত এজাহার দায়ের করেছেন। এতে জেলেপাড়ার মৃত যোগেশ চন্দ্রের ছেলে সুরেশ চন্দ্র দাস, নরেশ চন্দ্র দাস ও সুরেশের স্ত্রী মুক্তারাণী কে আসামী করা হয়েছে। মামলা নং ১৫, তারিখ ১৪ ডিসেম্বর।

এজাহারে তিনি উল্লেখ করেছেন যে, বিধবা মা চার ভাইয়ের মধ্যে আমার কাছেই থাকেন। মায়ের দুইটি গরু আছে। যেগুলো তিনিই দেখাশোনা করেন। প্রতিদিনের মত ঘটনার দিন সকালে মা তার গরু বাড়ির পাশেই পাথারে (খোলা মাঠে) ঘাস খাওয়ানোর জন্য বেধে রেখে আসেন। দুপুরে গিয়ে দেখেন গরুদুটো সেখানে নেই।

বিকাল পর্যন্ত খোঁজাখুঁজির পর জানতে পারেন পার্শবর্তী জেলেপাড়ার সুরেশের স্ত্রী মুক্তা রাণী গরু ধরে নিয়ে গেছেন। তিনি তখন সেখানে গেলে মুক্তারাণী বলেন গরুগুলো ক্ষেতের ধান খেয়েছে। এখন ক্ষতিপূরণ দিয়ে গরু নিয়ে যেতে হবে।

তখন বৃদ্ধা বলেন, আমিতো আপনার জমিতে গরু বাধিনি। ফাকা ক্ষেতে যেভাবে গরু বেধেছি তাতে তো ধান খাওয়ার কথা নয়। আপনার অভিযোগ ঠিক নয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মুক্তারাণী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। সেইসাথে সুরেশ ও তার ভাই নরেশও ঘর থেকে বের হয়ে এসে বকা দিতে থাকেন।

এতে বৃদ্ধা প্রতিবাদ করলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তিনজন মিলে বেধরক মারপিট শুরু করে। মারতে মারতে বাড়ির ভিতরে টেনে হিচড়ে নিয়ে গিয়ে ধান কাটা কাচি দিয়ে মাথার চুল ঘাড় পর্যন্ত কেটে দেয়। পরে গরুসহ বৃদ্ধাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। বাড়ি ফেরার পথে বৃদ্ধা অসুস্থ হয়ে মাটিতে পড়ে যায়।

তখন স্বাক্ষী প্রতিবেশী আব্দুস সাত্তার, ইয়াকুব আলী, মনোয়ারা বেওয়া, একরামুল ও মন্ডলপাড়ার আকবর আলী মন্ডল তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে বাড়িতে আনে। পরে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তিনি তৃতীয় তলায় ৭ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন আছেন।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল হাসনাত খান বলেন, ঘটনার পরপরই ৯৯৯ কল পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। অভিযুক্তরা তখন পালিয়ে যায়। পরে রাত ১২ টা ১৫ মিনিটে সৈয়দপুর শহরের জসিম বিল্ডিং এর পেছনের রাস্তা থেকে নরেশ চন্দ্রকে গ্রেফতার করে সকালে নীলফামারী জেলা হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারে প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000