মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
নীলফামারীর সৈয়দপুরে ১০০ শয্যা হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্স দুইটিই রোগাক্রান্ত, চিকিৎসার উদ্যোগ নেইশাবির ঘটনায় পটুয়াখালীর দুমকিতে ছাত্রদলের প্রতিকী অনশনআন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের আর্থিক লেনদেনের ছয়টি অ্যাকাউন্ট বন্ধের অভিযোগবিশ্বনাথের লামাকাজীতে ‘ঘোড়া’ প্রতিকের নির্বাচনী মিছিল ও সভাদুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পটুয়াখালীতে বহুযাত্রী আহতসিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান নুনু মিয়া’র মা গুরুতর অসুস্হ, দোয়ার আরজিবিশ্বনাথে নির্বাচনী আচরণবিধি অবহিতকরণ ও মতবিনিময় সভাসিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভাকরোনায় আক্রান্ত ছাতকের ইউএনওসিলেটের বিশ্বনাথে টমটম চালককে চুরিকাঘাত করে গাড়ী ও মোবাইল ফোন ছিনতাই

কুমিল্লার দেবীদ্বারে টানাবর্ষণে কৃষকের ২৭৯৩ হেক্টর জমি পানিতে তলিয়েগেছে

শাহ সাহিদ উদ্দিন, দেবীদ্বার, কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের কারণে দেবীদ্বার এলাকায় গত তিনদিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। শাক-সব্জী আবাদী কৃষকদের সম্ভাবনাময়ি স্বপ্ন এখন পানির নিচে।



অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে, বাজার ও বিপণী কেন্দ্রগুলোতে ক্রেতার সমাবেশও কমেগেছে। উপজেলা সদরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার অপ্রতুল ও যেগুলো আছে সেগুলোতে জমে থাকা ময়লা আবর্জণাগুলো পরিস্কার না করায় তিন দিনের টানা বর্ষনের ফলে উপজেলা সদরের সড়কগুলো পানির নিচে তলিয়ে গেছে। জরুরী প্রয়োজনে বের হওয়া মানুষগুলোর ড্রেনের বিসাক্ত ময়লা আবর্জনার পানি পায়ে লাগার পর চুলকানীসহ নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আগাম শীতকালীন সব্জী, মাছের ঘের, পুকুর ও রবি ফসলের চাষিরা। অধিকাংশ ক্ষেতের সব ফসল মাটির সাথে মিশে গেছে। ফসলের এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবে না অনেক কৃষক। এছাড়া এবার শাক-সব্জীর বাম্পার ফলনের সম্ভাবনায় কৃষকরাও বুকে বেঁধেছিলো রঙ্গীন স্বপ্ন। কিন্তু হঠাৎ এই বৃষ্টিতে কৃষকের বুক ভরা স্বপ্ন এক নিমেশেই ভঙ্গ হয়ে গেছে। এখন শুধুই রয়েছে হতাশা।

সোমবার বিকেলে মোহনপুর ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের কৃষক মোঃ বারেক মীর্জা, মোঃ আলী হোসেন, মোঃ নাজমুল হাসান, মোঃ রুবেল মীর্জা জানান, চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় তারা মাঠে এবার প্রায় দুই একর জমিতে আলু চাষ, এক একর জমিতে ফুল কপি ও দুই একর জমিতে মিষ্টি কোমড়া সহ অন্যান্য ফসল আবাদ করেছিলেন। টানা বর্ষনে সবই এখন পানির নিচে। আমরা ছোট কৃষক, লোন করে আবাদ করেছি। এ অবস্থায় কি করব ভেবে পাচ্ছিনা, বৃষ্টিও কমছেনা।

অসময়ে অতি বর্ষণের ফলে চলতি শীত মওসুমের ফসলের কি পরিমান ক্ষতি হতে পারে জানতে চাইলে উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান জানান, ফসলের কি পরিমান ক্ষতি হবে তা নিরুপনেরআগে বলা যাবেনা, তবে এবার রবি ফসল, শাকসব্জী ও বোর বীজতলাসহ প্রায় ২ হাজার ৭৯৩ হেক্টর ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

উপজেলা তথ্যানুযায়ি চলতি মওসুমে রবি ফসল: বোর বীজতলা- ৪৪৫ হেক্টরসহ গোল আলু চাষ- ১ হাজার ২৫ হেক্টর, কাঁচা মরিচ- ৬৫ হেক্টর, ধনিয়া পাতা- ৮৫ হেক্টর, পেঁয়াজ- ২০ হেক্টর, রসুন- ১০ হেক্টর, মিষ্টি আলু- ১৫ হেক্টর এবং শাকশব্জী: ফুল কপি- ১৫০ হেক্টর, বাঁধা কপি- ১৮৫ হেক্টর, বেগুন- ৮০ হেক্টর, টমেটো- ৯৫ হেক্টর, মুলা- ৬৬ হেক্টর, লাল শাক- ৮২ হেক্টর, ডাটা- ৬২ হেক্টর, পালং শাক- ২৬ হেক্টর, শষা- ৫০ হেক্টর, মিষ্টি কোমড়া- ৯৮ হেক্টর, করলা- ৪০ হেক্টর, ঢেরস- ৫০ হেক্টরসহ ২,৭৯৩ হেক্টর জমির ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। অনেক জায়গার ফসলের মাঠে পানিতে তলিয়ে থই থই করছে।

এছাড়াও দেবীদ্বার সদরের রাস্তা-ঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় জনজীবন দূর্বিস্বহ ও অনেকটা গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে। উপজেলার অধিকাংশ পুকুর এবং মাছের খামারের মাছ বেড়িয়ে মৎস চাষিরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মূখীন হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

এব্যাপারে দেবীদ্বার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রৌফ জানান, বঙ্গপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের ফলে তিন দিনের টানা বৃষ্টিতে চলতি মৌসুমে আবাদী ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে কি পরিমান ক্ষতি হতে পারে তা এ মূহুর্তে বলা যাবেনা। আমাদের মাঠ পর্যায়ের কৃষি উপ-সহকারী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছি, তারা মাঠে কাজ করছেন, ৭ ডিসেম্বর রিপোর্ট করবেন। যদি ৭ ডিসেম্বরের পরও বৃষ্টি অব্যাহত থাকে তাহলে ক্ষতির পরিমান বেশী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদি কৃষকরা ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্মূখীন হন তাহলে সরকার থেকে তাদের ভর্তুকীর ব্যবস্থা করার পরিকল্পনাও মাথায় রেখেছি।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000