শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:৫৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস্ প্রতিযোগিতার উদ্ভোধনসৈয়দপুরে সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন সরকারসহ ৩ বিএনপি নেতার স্মরনসভা অনুষ্ঠিতমিরেরচরেই হবে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ -বিশ্বনাথে এমপি মোকাব্বিরনীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ভূয়া এনএসআই সদস্যসহ আটক-২ওসমানীনগরের নবগ্রাম স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ কমিটি গঠনবাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা কমিটি গঠনসৈয়দপুরে বিসিক শিল্পনগরীতে প্লাইউড কারখানায় আগুনে কোটি টাকার ক্ষতিজামায়াত আমীর ডাঃ শফিকুর রহমানকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে লন্ডনে বিক্ষোভ সমাবেশছাতকের খুরমা উচ্চ বিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবসে আলোচনা সভানীলফামারীর সৈয়দপুরে মহান বিজয় দিবস পালিত

কিশোরগঞ্জ দরগা শরীফ থেকে আউয়ালকে গ্রেফতার

ডেস্ক রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ৪০৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

পল্লবীতে আলীনগর হাউজিং প্রকল্পে জমি না দেওয়ায় শাহিন উদ্দিনকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করার পর সন্ত্রাসী সুমন সাবেক এমপি এম এ আউয়ালকে ফোন করে জানান, ‘স্যার, ফিনিশ’।

এই হত্যাকাণ্ডের পাঁচ দিন পর এম এ আউয়ালকে কিশোরগঞ্জের ভৈরবের একটি দরগা শরিফ থেকে র‌্যাব গ্রেফতার করে। র‍্যাবের দাবি, শাহিন হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী সাবেক এই এমপি। হত্যার আগে তার কলাবাগানের অফিসে পরিকল্পনা করা হয়। সেই পরিকল্পনা বৈঠকে কিলিং মিশনে অংশ নেওয়া তিন সন্ত্রাসী উপস্থিত ছিলেন। এর আগে র‍্যাব চাঁদপুরে অভিযান চালিয়ে হাসান (১৯) ও পটুয়াখালী থেকে জহিরুল ইসলাম বাবুকে (২৭) গ্রেফতার করে।

অপরদিকে, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই ঘটনায় কিলার গ্রুপের প্রধান নেতা সুমন ও রকি তালুকদারকে বুধবার রাতে গ্রেফতার করে।

এর আগে এই হত্যাকাণ্ডে পল্লবী থানা পুলিশ মনিরকে গ্রেফতার করে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। গতকাল বৃহস্পতিবার কাওরান বাজার র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন কিলিং মিশনের যাবতীয় তথ্য উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, ‘আলীনগর হাউজিং প্রকল্পে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে শাহিন উদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এক বিঘার বেশি পরিমাণ জমি কেনার চেষ্টা করছিল সাবেক এমপি আউয়ালের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান হ্যাভিলি প্রপার্টি। নিহত শাহিন ও তার স্বজনরা ঐ জমির মালিক। কম টাকায় জমি কিনতে না পারার কারণে এই হত্যার ঘটনা ঘটে। তিনি বলেন, ‘বেশ কয়েক বছর ধরে শাহিনকে তারা টার্গেট করে আসছিল। দুই মাস আগেও আউয়ালের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা শাহিনের ওপর হামলা করেছিল। ঐ সময় তার মাথায় কোপ দেওয়া হয়। এমনকি কোপানোর পরও উলটা শাহিনের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে তাকে জেলে পাঠায় আউয়াল বাহিনী। গত ঈদের কয়েক দিন আগে শাহিন ঐ মামলায় জেল থেকে জামিনে বের হন। আর ঈদের দুই দিন পরই তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

আলোকিত সিলেট/এমবিএইচ

 

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000