বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০১:০১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মৌলভীবাজারের রাজনগরে গ্রীল ভেঙে ঘরে ঢুকে গরু চুরিবিশ্বনাথে কলেজ ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী আহত : আটক ১বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণ করলেন শফিক চৌধুরীনীলফামারীর সৈয়দপুরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কে হত্যার হুমকি প্রতিবাদে ছাত্রদলের বিক্ষোভমৌলভীবাজারের রাজনগরে সড়ক দূর্ঘটনায় ১জন নিহতবিশ্বনাথের রামপাশা ইউনিয়নে বন্যার্তদের মধ্যে অ্যাডভোকেট গিয়াসের চাল বিতরণরাজনগরে সম্পন্ন হলো অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ কর্মশালাছাতকের মরহুম আপ্তাব আলী তালুকদারের ২য় মৃত্যু বার্ষিকী আজবালাগঞ্জের গালিমপুর হরুননেছা খানম উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি পদে আউয়াল নির্বাচিতবন্যার্তদের মাঝে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে আর রাহমান এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের ত্রাণ বিতরণ

কলেজছাত্রী তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা: আপীলেও খুনীদের ফাঁসি বহাল

মোঃমিজানুর রহমান,পটুয়াখালী প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১১০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ষোল বছর আগে পটুয়াখালীর দশমিনায় কলেজছাত্রী তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগ দুই আসামির ফাঁসির আদেশ বহাল রেখেছেন। এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহতের পরিবার।



মঙ্গলবার (২৩ সেপ্টেম্বর) আসামিদের আপীল খারিজ করে ফাঁসি বহাল রাখেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপীল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ।

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামি মোঃ মিরাজ খলিফা উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়নের গছানী গ্রামের মৃত আবু তাহের মাষ্টারের ছেলে এবং নুর আলম হাওলাদার ওরফে পচু ওরফে সুমন ওরফে নুরুল আলম একই গ্রামের খোরশেদ হাওলাদারের ছেলে। মামলার অপর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়নের চরহোসনাবাদ গ্রামের নুর হোসেন গাজীর ছেলে মোঃ জাফর গাজী ইতোমধ্যে কারাগারে মৃত্যুবরণ করায় তার আপীল বাদ দেওয়া হয়েছে।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গছানী নানাবাড়ী থেকে তানিয়া দশমিনা আবদুর রসিদ তালুকদার কলেজে (বর্তমানে সরকারী কলেজ) এইচএসসি প্রথম বর্ষে পড়াশুনা করতেন। ২০০৫ সালের ২০ সেপ্টেম্বর সকালে তানিয়া প্রাইভেট পড়ার জন্য নানা বাড়ি থেকে কলেজের উদ্দেশ্যে গেলে পথিমধ্যে আসামিরা তানিয়াকে অপহরণ করে জোরপূর্বক ধর্ষণ শেষে হত্যা করে। এ ঘটনায় করা মামলায় আসামিদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

বরিশালের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ২০০৬ সালে তিন আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেয়। ২০১২ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট ওই রায় বহাল রাখেন। এর বিরুদ্ধে আপীল করে আসামিরা।

নিহত তানিয়া উপজেলার ৩নং বেতাগী সানকিপুর ইউনিয়নের বেতাগী সানকিপুর গ্রামের মোহাম্মদ আবু নোমান মাষ্টারের মেয়ে।

আপীল বিভাগ খুনীদের ফাঁসির আদেশ বহাল রাখায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে কান্না জড়িত কণ্ঠে তানিয়ার পিতা আবু নোমান মাষ্টার অবজারভারকে জানান, আমরা এ রায়ে সন্তুষ্ট। সরকার ও বিজ্ঞ আদালতের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। অতি দ্রুত এ রায় কার্যকরের দাবী জানান তিনি।

নিহত তানিয়ার অসুস্থ্য মাতা পিয়ারা খানম অবজারভারকে জানান, আমি আমার মেয়েকে হারিয়েছি। আর কাউকে যেন এভাবে সন্তান হারাতে না হয়। অতি দ্রুত এ রায় বাস্তবায়নের দাবী জানান তিনি।

দশমিনা সরকারি আবদুর রসিদ তালুকদার কলেজের ইসলামী শিক্ষা বিভাগের সদ্য অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এবিএম মাইনুদ্দিন হেলালী অবজারভারকে জানান, তানিয়া অত্যন্ত মেধাবী, সুন্দর মনের ও চরিত্রবান মেয়ে ছিল। তার চালচলন কথাবার্তায় অনেক মাধুর্য ছিল। তার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত হয়েছিলাম। আমরা শিক্ষক ছাত্রসহ সর্বস্তরের মানুষরা এ হত্যার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে মিছিলও করেছিলাম। আপীল বিভাগ আসামীদের আপীল খারিজ করে ফাঁসির আদেশ বহাল রাখায় আমি সন্তুষ্ট। অতি দ্রুত এ রায় বাস্তবায়নের দাবী জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা দশমিনা উপজেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম অবজারভারকে জানান, আপীল বিভাগ সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের আদেশ বহাল রাখায় আমি সন্তুষ্ট। ভবিষ্যতে যাতে এমন অপরাধের পুনরাবৃত্তি না ঘটে তাই অতি দ্রুত এ রায় কার্যকরের দাবী জানাচ্ছি।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000