শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নীলফামারীর সৈয়দপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভাবিশ্বনাথের দশঘরে সড়ক পাকাকরণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন এসএম নুনু মিয়ানীলফামারীর সৈয়দপুরে ১ সন্তানের জনকের লাশ উদ্ধারপটুয়াখালীতে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনস্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠকারী এম এ হান্নান সম্পর্কে ভুল তথ্য দিয়ে সমালোচনায় হানিফসৎপুর মাদরাসার ৭৫ বছরপূর্তি অনুষ্ঠান আগামী বছরের ১ লা মার্চনীলফামারীর সৈয়দপুরে অপহরণ চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার, অপহৃত কিশোর উদ্ধাররাজধানীতে ফের প্যাকেজিং কারখানায় আগুননীলফামারীর সৈয়দপুরে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতারসৈয়দপুরের প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষিকা এক মাসের ছুটি নিয়ে এক বছর ধরে আমেরিকায়

সিলেটে বাড়ছে করোনা: হাসপাতালে রোগীদের ভিড়

ডেস্ক রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৪ মার্চ, ২০২১
  • ৩৭০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

সিলেটের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ গত দুই-তিন মাস ধরে কম থাকলেও তা মার্চের শুরু থেকে ফের বাড়তে শুরু করেছে।

এরই মধ্যে সিলেটের করোনা আইসোলেশন সেন্টার শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল ও আইসিইউতে বেড়েছে রোগীর সংখ্যা। এছাড়া ভিড় বাড়ছে অন্যান্য হাসপাতালেও। একই সাথে বাড়তে শুরু করেছে রোগী সামলানোর চাপ।

এদিকে টিকা নেওয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি না মানা হয় তাহলে সংক্রমণের হারের সাথে সাথে বিপদও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, এখন থেকে যদি সচেতনতা বাড়ানো না যায়, তবে ফের করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে। কাজেই মানুষকে মাস্ক পরতে হবে, ঘনঘন হাত ধুতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করে চলতে হবে। নাহলে সামনে বড় বিপদ অপেক্ষা করছে বলে সাবধান করেছেন তারা।

সবশেষ আজ রোববার (১৪ মার্চ) বেলা ১টা পর্যন্ত সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ৪১ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। যাদের মধ্যে ২০ করোনা পজিটিভ রোগী। এদের ১১ জনকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ( আইসিইউ) রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া বাকি ২১ জন রোগী করোনার বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

এমতাবস্থায় বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার সংক্রমণরোধে সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি প্রয়োজনীয় বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি। ঘরের বাইরে বের হলে মুখে মাস্ক পরিধান করা, স্যানিটাইজার ব্যবহার, সাবান অথবা ছাই দিয়ে হাত ধোয়া, শারীরিক দূরত্ব মেনে চলা, জনসমাগমস্থলে না যাওয়া এই ব্যাপারগুলো মেনে চলে। তবে বর্তমানে মানুষের মধ্যে এ ব্যাপারে ব্যাপক উদাসীনতা লক্ষ্য করা গেছে। যা করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ। এছাড়া সম্প্রতি করোনার হার কমে যাওয়া ও টিকাদান কার্যক্রম শুরু হওয়ায় মানুষ মনে করছে করোনা চলে গেছে। কিন্তু এটা তাদের ভুল ধারণা। করোনার প্রথম ঢেউ চলাকালীন যেভাবে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাসহ অন্যান্য সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে, আবার সেই সতর্কতা অবলম্বন না করলে সংক্রমণের হার বহুগুণ বেড়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছেন তারা।

এ ব্যাপারে সিলেটে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের ডেপুটি আরএমও ডা. জন্মেজয় দত্ত সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরকে বলেন, বর্তমানে সিলেটের করোনা আক্রান্ত রোগীর পাশাপাশি করোনার বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। যা সামলাতেও কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে কর্তব্যরত চিকিৎসকদের। তবে আশারবাণী হচ্ছে রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করলেও বর্তমানে মৃত্যু হার অনেক কম।
সুত্র:সিলেট টুডে২৪.কম

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000