শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুপক্ষের গোলাগুলিতে দিল্লির আদালতকক্ষে নিহত ৪আগামীকাল ফেঞ্চুগঞ্জের কটালপুরে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্নয়ডাঃ বদরুল জয়নাল ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের আলোচনা সভা বালাগঞ্জে অনুষ্ঠিতসামাজিক মাধ্যমে তোলপাড়, লেবুখালী পায়রা সেতুতে মাত্রাতিরিক্ত টোলউপজেলা পরিষদের সাধারণ সভা অনুষ্টিত সিলেটের বিশ্বনাথেসিলেটের বিশ্বনাথে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা সম্পন্নঅসুস্হ জিল্লু মিয়াকে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করলো বিশ্বনাথ ওয়ান পাউন্ড হসপিটালদুমকি সরকারি জনতা কলেজের ছাত্রদের বেঞ্চে বসাকে কেন্দ্র করে মারামারি আহত ০১কলেজছাত্রী তানিয়া ধর্ষণ ও হত্যা: আপীলেও খুনীদের ফাঁসি বহালনালা খাল বিল অবৈধ জালের দখলে, সৈয়দপুরে হারিয়ে যাচ্ছে দেশী প্রজাতির মাছ

এসপি নাসির উদ্দিনের যোগদানের পরই কঠোর নিয়ন্ত্রনে জামালপুরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি

জিএম ফাতিউল হাফিজ বাবু , বকশীগঞ্জ(জামালপুর)প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

চলতি বছরের ২ মার্চ জামালপুরের পুলিশ সুপার হিসাবে যোগদান করেন নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ। যোগদানের পর গত মার্চ থেকে এ পর্যন্ত ৭৯৫.১ গ্রাম হিরোইন, ৭ হাজার ৫৬৫ পিস ইয়াবা, ৬৪.২৩কেজি গাজা, ১৭১লিটার চোলাইমদ ও ৫৫০ লিটার ওয়াশ, ২১৪পিস সিডিল ট্যাবলেট, ১৫পিস ইনজেকশন ও ৭পিস এভিল ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়েছে। যার টাকায় মুল্য ১ কোটি ১০লক্ষ ১৭ হাজার ৫০০টাকা।
এ সময় জামালপুরর সর্বমোট ২ হাজার ৬১০জন অপরাধীকে বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের ইতিহাসে সবচেয়ে কম সময়ে মামলার তদন্ত কাজ শেষ করে অভিযোগপত্র দাখিলের রেকর্ড করেছে পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিনের আহাম্মদের দিক নির্দেশনায়। জামালপুরের বকশীগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় একটি মামলা মাত্র ২০ ঘন্টায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। যার পিছনে ছিলেন এসপি নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ।
বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী একটি জেলা হচ্ছে জামালপুর। দেশের বৃহত্তম দুই নদী যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র এই জেলার উপর দিয়ে বয়ে গেছে। জেলায় বিস্তীর্ণ নদী থাকায় এখানে প্রায় সময় নৌ-ডাকাতি একটি সাধারন বিষয় হয়ে দাড়িয়ে ছিল। তিনি যোগদানের পর কঠোর পর্যবেক্ষনের ফলে গত ৩ মাসে একটিও এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি।
এছাড়া জেলার সাথে ভারতীয় সীমান্ত থাকায় এখানে চোরাচলান নিত্তনৈমিত্তিক ব্যাপার ছিল। কিন্তু এসপি হিসাবে নাসির উদ্দিন আহাম্মেদের যোগদানের পর সীমান্তে চোরাচালন শতভাগই বন্ধ হয়ে গেছে। পাশাপাশি মাদকের ভয়াল ছোবল থেকেও রক্ষা পেয়েছে যুব সমাজ।
সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, জুয়া ও বাল্যবিয়ে বন্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহন করার ফলে অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে জামালপুরে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক।
বৈশ্বিক মহামারী করোনাকালীন সময়ে এসপি নাসির উদ্দিন আহাম্মেদের ভুমিকা ছিল নজরকাড়া। সরকার ঘোষিত কঠোর লক ডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের ভুমিকা ছিল অত্যন্ত কঠোর পাশাপাশি মানবিক কার্যক্রম খাদ্য সহায়তা, আর্থিক সহায়তা ও মাস্ক বিতরণ কর্মসুচিগুলো ছিল প্রশংসার দাবীদার।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000