সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৬:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সিটি কর্পোরেশন সহ সিলেটের ৩২টি অফিসের বিরুদ্ধে বেশি অভিযোগ দুদকের গণশুনানিতেসিলেট জেলার ৩টি উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হলেন যারাখাজাঞ্চী ইউপি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রীতিগঞ্জ বাজারে স্হাপনের দাবিতে বিশ্বনাথে সভাভোট স্থগিত: কিশোরগঞ্জে কেন্দ্রে ঢুকে ভাঙ্চুর অগ্গিসংযোগ ব্যালট বাক্স ছিনতাই আহত-৩০স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ সমাবেশ পটুয়াখালীর দুমকিতেনীলফামারীর সৈয়দপুরে ইজিবাইকের চাপায় বৃদ্ধ নিহতকুমিল্লার দেবীদ্বার সরকারি হাসপাতাল পরিদর্শন করেন দেবীদ্বার উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদসকাল হলেই সিলেট বিভাগের ৭৭টি ইউনিয়নে ভোট যুদ্ধসেমিনার করলো এবিসি ইংলিশ ইনষ্টিটিউট বিশ্বনাথেউপজেলা চেয়ারম্যান নুনু মিয়া বিশ্বনাথে শীত বস্ত্র বিতরণ করেছেন

আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকীর ইন্তেকালে তালামীযের কেন্দ্রীয় সভাপতির শোক প্রকাশ

ফারুক আহমদ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২১
  • ৬৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি বিদ্যাপীঠ মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ’র উপদেষ্টা কমিটির সদস্য, বিশিষ্ট আলিমে দ্বীন, প্রখ্যাত মুফাসসিরে কুরআন, মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী’র ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি মোহাম্মদ দুলাল আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক মুজতবা হাসান চৌধুরী নুমান।

নেতৃবৃন্দ এক শোকবার্তায় বলেন, মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী ছাহেব ছিলেন সর্বজনশ্রদ্ধেয় প্রখ্যাত আলিমে দ্বীন। তিনি ছিলেন একাধারে একজন দায়ী ইলাল্লাহ ও অনুসরণীয় উস্তাদ। দ্বীনের একজন মুবাল্লিগ হিসেবে ইসলামের প্রকৃত সৌন্দর্য ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সহীহ মতাদর্শ প্রচারে তিনি ছিলেন নিবেদিত প্রাণ ব্যক্তিত্ব। হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলা (র.)-এর বিভিন্ন খেদমতের সাথে তিনি জীবনভর নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছিলেন। তিনি ছিলেন আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (র.)-এর অন্যতম খলিফা। ইলমে তরিকতের খেদমতেও তাঁর ছিলো অনন্য অবদান। বিশেষত তালামীযে ইসলামিয়ার কর্মীদের জন্য তিনি ছিলেন পরম অভিভাবক। তাঁর ইন্তেকালে আমরা আমাদের এক পরম অভিভাবককে হারিয়েছি। প্রথিতযশা এ আলিমে দ্বীন ও মুবাল্লিগের ইন্তেকালে দেশের ইসলামি অঙ্গনে অপূরণীয় এক শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ মরহুমের জন্য মহান আল্লাহর কাছে জান্নাতের উচ্চ মাকাম কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য: মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী গত ১৩ আগস্ট, শুক্রবার রাত ১:৩০ ঘটিকায় মৌলভীবাজার শহরস্থ নিজ বাসায় ইন্তেকাল করেন। শুক্রবার, দুপুর ২:৩০ ঘটিকায় মৌলভীবাজার শাহী ঈদগাহ মাঠে প্রথম জানাযা ও বাদ আছর বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল নিজগ্রামে দ্বিতীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার পাশে তাঁকে দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন, ভক্ত ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর ইন্তেকালে মৌলভীবাজারসহ বৃহত্তর সিলেটের আলিম-উলামা ও সর্বস্তরের জনসাধারণের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।

মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী ছাহেব ১৯৫৪ সালে বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পড়াশুনা সম্পন্ন করে তিনি শিক্ষকতা পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করেন। তিনি ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি বিদ্যাপীঠ মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসায় অধ্যক্ষ হিসেবে সুদীর্ঘ ৩৪ বছর দায়িত্ব পালন করে অবসর গ্রহণ করেন। উপমহাদেশের প্রখ্যাত বুযুর্গ আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলা (র.)-এর নিকট থেকে তিনি ইলমে তরিকতের তালিম নেন এবং তাঁর নিকট থেকে খেলাফতি লাভ করেন। তিনি আনজুমানে আল-ইসলাহ’র কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য ও দীর্ঘদিন মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি মাদরাসা শিক্ষকদের সংগঠন জমিয়তুল মোদার্রেছীন মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন। সুদীর্ঘকালের শিক্ষকতার জীবনে তিনি হাজারো মুফতি, মাওলানা, মুহাদ্দিস ও ফকিহ তৈরি করেছেন, যারা ইলমে দ্বীনের অঙ্গনে খিদমত চালিয়ে যাচ্ছেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000