সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
এনটিভির ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে খাবার বিতরণ ও চিকিৎসা সহায়তা প্রদানবিশ্বনাথে বন্যার্তদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার এান ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন নুনু মিয়ারাজনগরে কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও কৃষি অফিসারের কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধনবিশ্বনাথে থানা পুলিশের উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী বিতরণছাতকে ইমাম মোয়াজ্জিন গণকে খাদ্য সামগ্রী উপহার দিলেন সাহেলবিশ্বনাথে ‘বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের’ নগদ অর্থ বিতরণজামালপুরের বকশীগঞ্জে ইউনিয়ন বিএনপির কার্যালয় উদ্বোধনবালাগঞ্জে সালমান আহমেদের পরিবারের পক্ষ থেকে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণবিশ্বনাথে এক শিক্ষককে প্রাণ নাশের হুমকি দেওয়ায় থানায় সাধারণ ডায়েরীউপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান বকশীগঞ্জের আলহাজ গাজী আমানুজ্জামান মডার্ন কলেজ

অ্যান্তোনিও গুতেরেস আবারো জাতিসংঘ মহাসচিবের দায়িত্ব নিলেন

রিপোটারের নাম
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১
  • ২২১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্টারঃ টানা দ্বিতীয় মেয়াদে জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে শপথ নিয়েছেন অ্যান্তোনিও গুতেরেস। গতকাল শুক্রবার দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব গ্রহণের পর তিনি বিশ্বজুড়ে চলমান করোনা মহামারি থেকে প্রাপ্ত শিক্ষা কাজে লাগানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

২০২২ থেকে ২০২৬ সাল পর্যন্ত জাতিসংঘের শীর্ষ পদে দায়িত্ব পালন করবেন ৭২ বছর বয়সী পর্তুগীজ রাজনীতিবিদ গুতেরেস। এর আগে গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ভোটাভুটিতে গুতেরেসকে আরেক মেয়াদে দায়িত্ব দেয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়। মূলত নিরাপত্তা পরিষদের সুপারিশই সব সময় পালন করে সাধারণ পরিষদ। ফলে আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে গুতেরেসের দ্বিতীয় মেয়াদের কার্যক্রম। জাতিসংঘ মহাসচিব পদটির মেয়াদ পাঁচ বছর।

জাতিসংঘের সদরদফতর নিউইয়র্কে শপথ গ্রহণের পর সংবাদ সম্মেলনে গুতেরেস বলেন, ‘আমাদের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, সামনে বড় একটি সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এই সমস্যাকে (করোনাভাইরাস মহামারি) বদলে দিয়ে এমন একটি বিশ্ব তৈরি করা, যা থেকে শিক্ষা নেয়া যেতে পারে।’

বান কি মুনের পর ২০১৭ সাল থেকে জাতিসংঘের মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করে আসছেন অ্যান্তোনিও গুতেরেস। ১৯৯৫ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত তিনি পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। এছাড়া ২০০৫ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন গুতেরেস। সোশ্যালিস্ট ইন্টারন্যাশনালের সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

অ্যান্তোনিও গুতেরেস ছাড়াও আরও ১০ জন এ পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বী হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শুধু পর্তুগাল ছাড়া সদস্য দেশগুলোর কেউই আনুষ্ঠানিকভাবে কারও নাম প্রস্তাব না করায় কেউ প্রার্থী হতে পারেননি।

রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দেখতে ২০১৮ সালে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম ও আন্তর্জাতিক রেডক্রসের প্রেসিডেন্ট পিটার মরাসহ উচ্চপর্যায়ের পাঁচ ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশ সফর করেন। এ সময় তারা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন জাতিসংঘ মহাসচিব। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অ্যান্তোনিও গুতেরেস সরাসরি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শনে যান।

১৯৪৯ সালের ৩০ এপ্রিল পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে জন্মগ্রহণ করেন অ্যান্তোনিও গুতেরেস। সেখানেই তার শৈশবকাল অতিবাহিত হয়। তার বাবা ভার্জিলিও ডায়াস গুতেরেস ও মাতা ইল্দা কান্ডিডা দে অলিভেইরা।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD
jphostbd-15000